০১:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪

600 জন নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও তালিকা প্রকাশ করা হয়নি

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:৪২:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ৮৭৬ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে প্রশ্ন তুলে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘তারা (মার্কিন) অভিযোগ করেছে, ২০০৯ সাল থেকে র‌্যাবের হাতে ৬০০ মানুষ নিখোঁজ হয়েছে। কিন্তু আমি 2015 সালে র‌্যাবে প্রবেশ করি। তাহলে আমাকে কেন সেই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হলো? 2009 সালে, আমি নিউইয়র্কে বাংলাদেশ মিশনের প্রথম সচিব হিসেবে কর্মরত ছিলাম। প্রকৃত সত্য হলো, নিখোঁজ হওয়া ৬০০ জনের কোনো তালিকা কোথাও প্রকাশ করা হয়নি। বৃহস্পতিবার নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের কাছে গুলশান টেরেস অডিটোরিয়ামে এক নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন আইজিপি বেনজীর আহমেদ। এতে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা হিন্দাল কাদির বাপ্পা। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম। শুক্রবার পুলিশ সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

আইজিপি বেনজির এখন জাতিসংঘের পুলিশ প্রধানদের সম্মেলনে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে রয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের নেতৃত্বে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল সেখানে যান।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আইজিপি বেনজীর আহমেদ বলেন, আমি মার্কিন প্রশাসন বা আমেরিকানদের দোষ দিতে চাই না। কারণ, যারা 1970 সালের নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর নৌকাকে ভোট দেয়নি, যারা 1971 সালে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী ছিল তাদের দ্বারাই। ওই ভাড়াটে সংস্থাটি অভিযোগের অনুমোদনের জন্য টানা তিন বছর ধরে চেষ্টা করছে।

সংবর্ধনায় আইজিপি বলেন, ‘আমরা স্বাধীনতা সংগ্রামে জয়ী হয়েছি। এখন মুক্তির সংগ্রাম চলছে। এই লড়াই চলতেই থাকে। এই লড়াই জিততেই হবে। দেশের বিরুদ্ধে, উন্নয়নের বিরুদ্ধে ও অগ্রগতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে। একসময় মনে করা হতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সাংবাদিকতায় বিপ্লব ঘটাবে। কিন্তু আমরা আসলে কী দেখছি’, তিনি বলেন, সমাজের প্রামাণ্যচিত্র স্পষ্টভাবে বেরিয়ে আসবে। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে যত ভুয়া ও উদ্ভট তথ্য প্রকাশ পাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘২২ জন তথ্য-সন্ত্রাসী রয়েছে। তাদের জবাব দিতে হবে। আপনি যে মূল্যবোধের পক্ষে দাঁড়িয়েছেন তার যদি আপনি চ্যাম্পিয়ন হন, তবে আপনাকে এটি মেনে চলতে হবে।’

আইজিপি বলেন, তথ্য-সন্ত্রাসীরা দেশের বিরুদ্ধে, তারা মানবতাবিরোধী অপপ্রচার চালাচ্ছে। তিনি বলেন, নোংরা জিনিস ফেসবুকে দেখা মাত্রই ফ্লাশ করা উচিত। এর বিরুদ্ধে প্রকৃত সত্যকে উপস্থাপন করতে হবে, তবেই মিথ্যার পরাজয় হবে।

বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় পরিণত করার চলমান সংগ্রামে আমি সবার পাশে আছি।’ দেশকে আগে এগিয়ে নিয়ে অদম্য গতিতে এগিয়ে চলার জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

600 জন নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও তালিকা প্রকাশ করা হয়নি

আপডেট সময় ০৩:৪২:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২২

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে প্রশ্ন তুলে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘তারা (মার্কিন) অভিযোগ করেছে, ২০০৯ সাল থেকে র‌্যাবের হাতে ৬০০ মানুষ নিখোঁজ হয়েছে। কিন্তু আমি 2015 সালে র‌্যাবে প্রবেশ করি। তাহলে আমাকে কেন সেই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হলো? 2009 সালে, আমি নিউইয়র্কে বাংলাদেশ মিশনের প্রথম সচিব হিসেবে কর্মরত ছিলাম। প্রকৃত সত্য হলো, নিখোঁজ হওয়া ৬০০ জনের কোনো তালিকা কোথাও প্রকাশ করা হয়নি। বৃহস্পতিবার নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের কাছে গুলশান টেরেস অডিটোরিয়ামে এক নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন আইজিপি বেনজীর আহমেদ। এতে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা হিন্দাল কাদির বাপ্পা। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম। শুক্রবার পুলিশ সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

আইজিপি বেনজির এখন জাতিসংঘের পুলিশ প্রধানদের সম্মেলনে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে রয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের নেতৃত্বে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল সেখানে যান।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আইজিপি বেনজীর আহমেদ বলেন, আমি মার্কিন প্রশাসন বা আমেরিকানদের দোষ দিতে চাই না। কারণ, যারা 1970 সালের নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর নৌকাকে ভোট দেয়নি, যারা 1971 সালে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী ছিল তাদের দ্বারাই। ওই ভাড়াটে সংস্থাটি অভিযোগের অনুমোদনের জন্য টানা তিন বছর ধরে চেষ্টা করছে।

সংবর্ধনায় আইজিপি বলেন, ‘আমরা স্বাধীনতা সংগ্রামে জয়ী হয়েছি। এখন মুক্তির সংগ্রাম চলছে। এই লড়াই চলতেই থাকে। এই লড়াই জিততেই হবে। দেশের বিরুদ্ধে, উন্নয়নের বিরুদ্ধে ও অগ্রগতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে। একসময় মনে করা হতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সাংবাদিকতায় বিপ্লব ঘটাবে। কিন্তু আমরা আসলে কী দেখছি’, তিনি বলেন, সমাজের প্রামাণ্যচিত্র স্পষ্টভাবে বেরিয়ে আসবে। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে যত ভুয়া ও উদ্ভট তথ্য প্রকাশ পাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘২২ জন তথ্য-সন্ত্রাসী রয়েছে। তাদের জবাব দিতে হবে। আপনি যে মূল্যবোধের পক্ষে দাঁড়িয়েছেন তার যদি আপনি চ্যাম্পিয়ন হন, তবে আপনাকে এটি মেনে চলতে হবে।’

আইজিপি বলেন, তথ্য-সন্ত্রাসীরা দেশের বিরুদ্ধে, তারা মানবতাবিরোধী অপপ্রচার চালাচ্ছে। তিনি বলেন, নোংরা জিনিস ফেসবুকে দেখা মাত্রই ফ্লাশ করা উচিত। এর বিরুদ্ধে প্রকৃত সত্যকে উপস্থাপন করতে হবে, তবেই মিথ্যার পরাজয় হবে।

বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় পরিণত করার চলমান সংগ্রামে আমি সবার পাশে আছি।’ দেশকে আগে এগিয়ে নিয়ে অদম্য গতিতে এগিয়ে চলার জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।