০৮:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

সিলেট বিভাগের বন্যার্তদের জন্য ২৬ হাজার খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৪:৩৬:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ জুন ২০২২
  • / ১২১১ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

সিলেট বিভাগের বন্যার্তদের জন্য ২৬ হাজার প্যাকেট শুকনো ও অন্যান্য খাদ্য সামগ্রী বরাদ্দ করা হয়েছে। চাল, ডাল, তেল, লবণ এবং চিনি সহ খাবারের প্রতিটি প্যাকেট পাঁচজনের পরিবারের জন্য এক সপ্তাহ স্থায়ী হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এ সহায়তা ছাড়াও বন্যাকবলিত মানুষের জন্য অর্থ ও চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। শুক্রবার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এ বরাদ্দ দিয়েছে।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বন্যাকবলিত সিলেটের জন্য ২০০ মেট্রিক টন চাল, ৩ লাখ ৬ হাজার টাকার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ করা হয়েছে। সুনামগঞ্জে ৩০ লাখ ৬ হাজার টাকা শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট, নেত্রকোনায় ১০০ মেট্রিক টন চাল, ১০ লাখ ৩ হাজার টাকা শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ করা হয়েছে।

অন্যদিকে দেশের উত্তরাঞ্চলের বন্যাকবলিত এলাকার জন্যও খাদ্য সহায়তা বরাদ্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে কুড়িগ্রামের জন্য ১০ লাখ টাকা এবং শুকনো ও অন্যান্য খাবারের এক হাজার প্যাকেট, রংপুর ও নীলফামারীর জন্য তিন হাজার প্যাকেট শুকনো ও অন্যান্য খাবার বরাদ্দ করা হয়েছে।

বরাদ্দকৃত অর্থ শুধুমাত্র জরুরী পরিস্থিতিতে বন্যাসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য মানবিক সহায়তা হিসেবে বিতরণ করা উচিত।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সিলেট বিভাগের বন্যার্তদের জন্য ২৬ হাজার খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ

আপডেট সময় ০৪:৩৬:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ জুন ২০২২

সিলেট বিভাগের বন্যার্তদের জন্য ২৬ হাজার প্যাকেট শুকনো ও অন্যান্য খাদ্য সামগ্রী বরাদ্দ করা হয়েছে। চাল, ডাল, তেল, লবণ এবং চিনি সহ খাবারের প্রতিটি প্যাকেট পাঁচজনের পরিবারের জন্য এক সপ্তাহ স্থায়ী হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এ সহায়তা ছাড়াও বন্যাকবলিত মানুষের জন্য অর্থ ও চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। শুক্রবার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এ বরাদ্দ দিয়েছে।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বন্যাকবলিত সিলেটের জন্য ২০০ মেট্রিক টন চাল, ৩ লাখ ৬ হাজার টাকার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ করা হয়েছে। সুনামগঞ্জে ৩০ লাখ ৬ হাজার টাকা শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট, নেত্রকোনায় ১০০ মেট্রিক টন চাল, ১০ লাখ ৩ হাজার টাকা শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ করা হয়েছে।

অন্যদিকে দেশের উত্তরাঞ্চলের বন্যাকবলিত এলাকার জন্যও খাদ্য সহায়তা বরাদ্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে কুড়িগ্রামের জন্য ১০ লাখ টাকা এবং শুকনো ও অন্যান্য খাবারের এক হাজার প্যাকেট, রংপুর ও নীলফামারীর জন্য তিন হাজার প্যাকেট শুকনো ও অন্যান্য খাবার বরাদ্দ করা হয়েছে।

বরাদ্দকৃত অর্থ শুধুমাত্র জরুরী পরিস্থিতিতে বন্যাসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য মানবিক সহায়তা হিসেবে বিতরণ করা উচিত।