১০:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

সাকিবের ব্যাটিংয়ের সময় মাঠে ‘গোপন সংকেত’ পাঠিয়েছিলেন লঙ্কান কোচ

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:২৭:২০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ৬৯০ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

2D’ এবং ‘D5’।

গতকাল দুবাইয়ে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের সময় ড্রেসিংরুমে একসঙ্গে বসেছিলেন শ্রীলঙ্কার কোচ ক্রিস সিলভারউড ও দলের বিশ্লেষক। তিনি মনোযোগ দিয়ে দলের খেলা দেখছিলেন। এর পাশাপাশি তারা একটি অভিনয়ও করেছেন, যা ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। ফিল্ডিং করা শ্রীলঙ্কা দলকে ড্রেসিংরুম থেকে ‘গোপন সংকেত’ পাঠিয়েছে তারা। লেখার শুরুতে উল্লেখিত দুটি শব্দ গোপন সংকেত।

এই ‘কোডেড সিগন্যাল’ এর অর্থ খোঁজার চেষ্টা করা বৃথা। এর মানে শুধু শ্রীলঙ্কা দলই জানে। তবে এই গোপন সংকেত পাঠানোর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর বিষয়টি ভালোভাবে নেননি অনেকেই।

সিলভারউডের জন্য, এই গোপন সংকেত নতুন কিছু নয়। মাঠে থাকা খেলোয়াড়দের গোপন সংকেত পাঠালেন ইংল্যান্ড দলের কোচ। গতকাল বাংলাদেশ দলের ব্যাটিংয়ের সময় মাঠে শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দাসুন শানাকাকে এই গোপন সংকেত পাঠান সিলভারউড। যতদূর আমরা অনুমান করতে পারি, ইঙ্গিতগুলি অবশ্যই ম্যাচ সম্পর্কে ছিল, কৌশলটি কী হওয়া উচিত, কীভাবে কী করা উচিত – সম্ভবত এই সমস্তই। তবে প্রশ্ন উঠেছে, মাঠে অধিনায়ক হওয়ার জন্য বাইরে থেকে গোপন সংকেত পাঠানো কতটা বৈধ? শ্রীলঙ্কার জয়ের পর এই কাজের ব্যাখ্যা দেন সিলভারউড। তিনি ক্ষেত্রটিতে গোপন সংকেত প্রেরণে কোনও সমস্যা দেখেন না, “এটি মহাকাশ বিজ্ঞান নয়।” একজন ব্যাটসম্যান যখন স্ট্রাইকে থাকে তখন সবচেয়ে ভালো কাজ কী? অনেক দল এখন এটা করে। এটা শুধু অধিনায়ককে জানানোর জন্য যে এটা করা যেতে পারে। ক্যাপ্টেনকে বলা হচ্ছে না কীভাবে করবেন। দলের পক্ষ থেকে শুধু কিছু পরামর্শ, এটাই।’

ইংল্যান্ডের কোচ থাকাকালীন সিলভারউড মাঠে গোপন সংকেত পাঠাতেন। এরপর ইংল্যান্ডের অধিনায়ক ইউইন মরগানও তার কোচের কাজের সমর্থনে যুক্তি দেন। ক্রিকইনফো-এর সাথে কথা বলতে গিয়ে মরগান বলেন, “এটা মোটেও খেলার চেতনার বিরুদ্ধে নয়। 100% চেতনা থেকে করা হয়েছে। এটি অপ্রত্যাশিত নয়। মাঠে যতটা সম্ভব তথ্য পাওয়ার জন্য এটি করা হয়েছে।’ সিলভারউড 2020 সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের সময় ইংল্যান্ডের কোচ থাকাকালীন মাঠে ‘রিয়েল টাইম কোডেড সিগন্যাল’ পাঠিয়েছিলেন। তিনি মরগানের সাথে যোগাযোগ করার জন্য এই পদ্ধতিটি বেছে নিয়েছিলেন। তবে সিলভারউডের কাজটি ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল ভন দ্বারা সমালোচিত হয়েছিল। যদিও ইসিবি সিলভারউডকে সমর্থন করেছিল। , বলা হয়েছিল যে মাঠে পাঠানো তথ্য “অধিনায়ক চাইলে ব্যবহার করতে পারেন বা এড়িয়ে যেতে পারেন।” এগুলো এমন নির্দেশনা নয় যা মাঠে সিদ্ধান্ত গ্রহণে ভূমিকা রাখবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অবশ্য সিলভারউডকে ছাড়েননি অনেক সমর্থক। গতকাল শ্রীলঙ্কান কোচ একই কাজ করার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে এক সমর্থক মন্তব্য করেছেন, ‘যদি ড্রেসিংরুম থেকে সংকেত পাঠাতে হয়, তাহলে মাঠে অধিনায়কের ভূমিকা কী? ক্রিকেট ফুটবল নয়।

গতকাল বাংলাদেশকে ২ উইকেটে হারিয়ে এশিয়া কাপের সুপার ফোরে উঠেছে শ্রীলঙ্কা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সাকিবের ব্যাটিংয়ের সময় মাঠে ‘গোপন সংকেত’ পাঠিয়েছিলেন লঙ্কান কোচ

আপডেট সময় ০৬:২৭:২০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২২

2D’ এবং ‘D5’।

গতকাল দুবাইয়ে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের সময় ড্রেসিংরুমে একসঙ্গে বসেছিলেন শ্রীলঙ্কার কোচ ক্রিস সিলভারউড ও দলের বিশ্লেষক। তিনি মনোযোগ দিয়ে দলের খেলা দেখছিলেন। এর পাশাপাশি তারা একটি অভিনয়ও করেছেন, যা ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। ফিল্ডিং করা শ্রীলঙ্কা দলকে ড্রেসিংরুম থেকে ‘গোপন সংকেত’ পাঠিয়েছে তারা। লেখার শুরুতে উল্লেখিত দুটি শব্দ গোপন সংকেত।

এই ‘কোডেড সিগন্যাল’ এর অর্থ খোঁজার চেষ্টা করা বৃথা। এর মানে শুধু শ্রীলঙ্কা দলই জানে। তবে এই গোপন সংকেত পাঠানোর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর বিষয়টি ভালোভাবে নেননি অনেকেই।

সিলভারউডের জন্য, এই গোপন সংকেত নতুন কিছু নয়। মাঠে থাকা খেলোয়াড়দের গোপন সংকেত পাঠালেন ইংল্যান্ড দলের কোচ। গতকাল বাংলাদেশ দলের ব্যাটিংয়ের সময় মাঠে শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দাসুন শানাকাকে এই গোপন সংকেত পাঠান সিলভারউড। যতদূর আমরা অনুমান করতে পারি, ইঙ্গিতগুলি অবশ্যই ম্যাচ সম্পর্কে ছিল, কৌশলটি কী হওয়া উচিত, কীভাবে কী করা উচিত – সম্ভবত এই সমস্তই। তবে প্রশ্ন উঠেছে, মাঠে অধিনায়ক হওয়ার জন্য বাইরে থেকে গোপন সংকেত পাঠানো কতটা বৈধ? শ্রীলঙ্কার জয়ের পর এই কাজের ব্যাখ্যা দেন সিলভারউড। তিনি ক্ষেত্রটিতে গোপন সংকেত প্রেরণে কোনও সমস্যা দেখেন না, “এটি মহাকাশ বিজ্ঞান নয়।” একজন ব্যাটসম্যান যখন স্ট্রাইকে থাকে তখন সবচেয়ে ভালো কাজ কী? অনেক দল এখন এটা করে। এটা শুধু অধিনায়ককে জানানোর জন্য যে এটা করা যেতে পারে। ক্যাপ্টেনকে বলা হচ্ছে না কীভাবে করবেন। দলের পক্ষ থেকে শুধু কিছু পরামর্শ, এটাই।’

ইংল্যান্ডের কোচ থাকাকালীন সিলভারউড মাঠে গোপন সংকেত পাঠাতেন। এরপর ইংল্যান্ডের অধিনায়ক ইউইন মরগানও তার কোচের কাজের সমর্থনে যুক্তি দেন। ক্রিকইনফো-এর সাথে কথা বলতে গিয়ে মরগান বলেন, “এটা মোটেও খেলার চেতনার বিরুদ্ধে নয়। 100% চেতনা থেকে করা হয়েছে। এটি অপ্রত্যাশিত নয়। মাঠে যতটা সম্ভব তথ্য পাওয়ার জন্য এটি করা হয়েছে।’ সিলভারউড 2020 সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের সময় ইংল্যান্ডের কোচ থাকাকালীন মাঠে ‘রিয়েল টাইম কোডেড সিগন্যাল’ পাঠিয়েছিলেন। তিনি মরগানের সাথে যোগাযোগ করার জন্য এই পদ্ধতিটি বেছে নিয়েছিলেন। তবে সিলভারউডের কাজটি ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল ভন দ্বারা সমালোচিত হয়েছিল। যদিও ইসিবি সিলভারউডকে সমর্থন করেছিল। , বলা হয়েছিল যে মাঠে পাঠানো তথ্য “অধিনায়ক চাইলে ব্যবহার করতে পারেন বা এড়িয়ে যেতে পারেন।” এগুলো এমন নির্দেশনা নয় যা মাঠে সিদ্ধান্ত গ্রহণে ভূমিকা রাখবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অবশ্য সিলভারউডকে ছাড়েননি অনেক সমর্থক। গতকাল শ্রীলঙ্কান কোচ একই কাজ করার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে এক সমর্থক মন্তব্য করেছেন, ‘যদি ড্রেসিংরুম থেকে সংকেত পাঠাতে হয়, তাহলে মাঠে অধিনায়কের ভূমিকা কী? ক্রিকেট ফুটবল নয়।

গতকাল বাংলাদেশকে ২ উইকেটে হারিয়ে এশিয়া কাপের সুপার ফোরে উঠেছে শ্রীলঙ্কা।