০৯:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

শেষ ওভারে ১৫ রান নিলেও পান্ডিয়ার কোনো সমস্যা হয়নি

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:০৬:১১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৯ অগাস্ট ২০২২
  • / ৮৪৫ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

৬ বলে দরকার ৭ রান। শেষ ওভারে পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের জয়ের হিসেব ছিল। ৫ উইকেট ছিল। কঠিন হিসাব নয়। কিন্তু বাঁহাতি স্পিনার মোহাম্মদ নওয়াজের প্রথম বলেই আউট হন রবীন্দ্র জাদেজা। দীনেশ কার্তিক এসে প্রথম বলেই হার্দিক পান্ডিয়াকে স্ট্রাইক করেন। ওভারের তৃতীয় বলে ডট করেন পান্ডিয়া। একটা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে ম্যাচটা একটু বেশি হচ্ছে কিনা। ভারতের প্রয়োজন ছিল ৩ বলে ৬ রান। পরের বলেই প্রশ্ন থামিয়ে দেন পান্ডিয়া। নওয়াজের চতুর্থ বলটি দড়ির ওপর দিয়ে সীমানার বাইরে পাঠানো হয়।

দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে শোনা গেল ‘পান্ড্যা, পান্ড্যা’। পান্ডিয়া বাঁ হাতে হেলমেট ও ব্যাট ধরে ডান হাত বাড়ালেন। যেন উচ্চস্বরে ঘোষণা করলেন- জয় আমাদের! ধারাভাষ্যকক্ষে পান্ডিয়ার প্রশংসা হচ্ছে। তার অলরাউন্ড পারফরম্যান্সেই ভারত পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারাতে সক্ষম হয়। পান্ডিয়ার সবচেয়ে বড় অবদান ছিল টস হেরে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের ১৪৭ রানে অলআউট। ৪ ওভারে ২৫ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন তিনি। এরপর ১৭ বলে ৪ চার ও ১ ছক্কায় ৩৩ রান করেন অপরাজিত। ম্যাচ সেরার পুরস্কারও জিতেছেন পান্ডিয়া। ম্যাচ শেষে পান্ডিয়া জানালেন নিজের পারফরম্যান্সের রহস্য এবং শেষ ওভারে সেই ছক্কা। পান্ডিয়া রান তাড়া করার পরিকল্পনা সম্পর্কে বলেছেন, “এই ধরনের রান তাড়াতে, আপনাকে সবসময় ওভার ধরে রাখতে হবে এবং খেলতে হবে। আমি জানতাম তাদের একজন তরুণ বোলার আছে। এর পাশাপাশি একজন বাঁহাতি স্পিনার (নওয়াজ)ও আছেন। .

পান্ডিয়া তখন শেষ ওভার নিয়ে বলেছিলেন, ‘আমাদের দরকার ছিল মাত্র ৭ রান। যদি ১৫ রানের প্রয়োজন হতো, আমি সুযোগ নিতাম। আমি জানি ২০তম ওভারে বোলার আমার চেয়ে বেশি চাপে থাকবে। আমি জিনিসগুলো সহজ রাখার চেষ্টা করি।’

ভারতীয় অলরাউন্ডার তার বোলিং নিয়েও কথা বলেছেন, ‘বোলিংয়ে আপনাকে পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করতে হবে। তারপর অস্ত্রটি সঠিকভাবে ব্যবহার করতে হবে। আমার শক্তি শর্ট এবং হার্ড লেন্থ বল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

শেষ ওভারে ১৫ রান নিলেও পান্ডিয়ার কোনো সমস্যা হয়নি

আপডেট সময় ০৬:০৬:১১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৯ অগাস্ট ২০২২

৬ বলে দরকার ৭ রান। শেষ ওভারে পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের জয়ের হিসেব ছিল। ৫ উইকেট ছিল। কঠিন হিসাব নয়। কিন্তু বাঁহাতি স্পিনার মোহাম্মদ নওয়াজের প্রথম বলেই আউট হন রবীন্দ্র জাদেজা। দীনেশ কার্তিক এসে প্রথম বলেই হার্দিক পান্ডিয়াকে স্ট্রাইক করেন। ওভারের তৃতীয় বলে ডট করেন পান্ডিয়া। একটা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে ম্যাচটা একটু বেশি হচ্ছে কিনা। ভারতের প্রয়োজন ছিল ৩ বলে ৬ রান। পরের বলেই প্রশ্ন থামিয়ে দেন পান্ডিয়া। নওয়াজের চতুর্থ বলটি দড়ির ওপর দিয়ে সীমানার বাইরে পাঠানো হয়।

দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে শোনা গেল ‘পান্ড্যা, পান্ড্যা’। পান্ডিয়া বাঁ হাতে হেলমেট ও ব্যাট ধরে ডান হাত বাড়ালেন। যেন উচ্চস্বরে ঘোষণা করলেন- জয় আমাদের! ধারাভাষ্যকক্ষে পান্ডিয়ার প্রশংসা হচ্ছে। তার অলরাউন্ড পারফরম্যান্সেই ভারত পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারাতে সক্ষম হয়। পান্ডিয়ার সবচেয়ে বড় অবদান ছিল টস হেরে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের ১৪৭ রানে অলআউট। ৪ ওভারে ২৫ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন তিনি। এরপর ১৭ বলে ৪ চার ও ১ ছক্কায় ৩৩ রান করেন অপরাজিত। ম্যাচ সেরার পুরস্কারও জিতেছেন পান্ডিয়া। ম্যাচ শেষে পান্ডিয়া জানালেন নিজের পারফরম্যান্সের রহস্য এবং শেষ ওভারে সেই ছক্কা। পান্ডিয়া রান তাড়া করার পরিকল্পনা সম্পর্কে বলেছেন, “এই ধরনের রান তাড়াতে, আপনাকে সবসময় ওভার ধরে রাখতে হবে এবং খেলতে হবে। আমি জানতাম তাদের একজন তরুণ বোলার আছে। এর পাশাপাশি একজন বাঁহাতি স্পিনার (নওয়াজ)ও আছেন। .

পান্ডিয়া তখন শেষ ওভার নিয়ে বলেছিলেন, ‘আমাদের দরকার ছিল মাত্র ৭ রান। যদি ১৫ রানের প্রয়োজন হতো, আমি সুযোগ নিতাম। আমি জানি ২০তম ওভারে বোলার আমার চেয়ে বেশি চাপে থাকবে। আমি জিনিসগুলো সহজ রাখার চেষ্টা করি।’

ভারতীয় অলরাউন্ডার তার বোলিং নিয়েও কথা বলেছেন, ‘বোলিংয়ে আপনাকে পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করতে হবে। তারপর অস্ত্রটি সঠিকভাবে ব্যবহার করতে হবে। আমার শক্তি শর্ট এবং হার্ড লেন্থ বল।