০৯:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসতে হবে: জাতিসংঘ

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:২০:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ অগাস্ট ২০২২
  • / ১০১০ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের শিগগিরই তাদের দেশে ফেরার সম্ভাবনা দেখছেন না জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি মনে করেন, রোহিঙ্গা সংকটের টেকসই সমাধান জরুরি। বুধবার এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন। 25 আগস্ট, 2017, দেশটির সেনাবাহিনী মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর দমন-পীড়ন শুরু করে। ফলে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। আজ বৃহস্পতিবার রোহিঙ্গা নিপীড়নের ঘটনার পাঁচ বছর পূর্ণ হচ্ছে। এ উপলক্ষে বিবৃতি দেন জাতিসংঘের মহাসচিব ড.

আন্তোনিও গুতেরেস বিবৃতিতে বলেন, রাখাইন থেকে রোহিঙ্গা ও অন্যান্য সম্প্রদায়ের জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত হওয়ার পাঁচ বছর পূর্ণ হচ্ছে। প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। শিগগিরই তাদের দেশে ফেরার কোনো সম্ভাবনা নেই। এরই মধ্যে রাখাইনের বিভিন্ন ক্যাম্পে দেড় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বন্দি রয়েছে।

জাতিসংঘ মহাসচিবের বিবৃতি অনুযায়ী, ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের পর দেশটির মানবাধিকার ও নিরাপত্তা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। এ প্রেক্ষাপটে রোহিঙ্গা সংকটের একটি ব্যাপক, টেকসই ও অন্তর্ভুক্তিমূলক সমাধানের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

গুতেরেস বলেছেন, মিয়ানমারে সংঘটিত সকল আন্তর্জাতিক অপরাধের সাথে জড়িতদের অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে। একই সাথে মিয়ানমার ও এর জনগণের জন্য একটি টেকসই এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক রাজনৈতিক ভবিষ্যত গড়ে তোলার জন্য নির্যাতিতদের বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসতে হবে: জাতিসংঘ

আপডেট সময় ০৫:২০:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ অগাস্ট ২০২২

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের শিগগিরই তাদের দেশে ফেরার সম্ভাবনা দেখছেন না জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি মনে করেন, রোহিঙ্গা সংকটের টেকসই সমাধান জরুরি। বুধবার এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন। 25 আগস্ট, 2017, দেশটির সেনাবাহিনী মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর দমন-পীড়ন শুরু করে। ফলে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। আজ বৃহস্পতিবার রোহিঙ্গা নিপীড়নের ঘটনার পাঁচ বছর পূর্ণ হচ্ছে। এ উপলক্ষে বিবৃতি দেন জাতিসংঘের মহাসচিব ড.

আন্তোনিও গুতেরেস বিবৃতিতে বলেন, রাখাইন থেকে রোহিঙ্গা ও অন্যান্য সম্প্রদায়ের জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত হওয়ার পাঁচ বছর পূর্ণ হচ্ছে। প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। শিগগিরই তাদের দেশে ফেরার কোনো সম্ভাবনা নেই। এরই মধ্যে রাখাইনের বিভিন্ন ক্যাম্পে দেড় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বন্দি রয়েছে।

জাতিসংঘ মহাসচিবের বিবৃতি অনুযায়ী, ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের পর দেশটির মানবাধিকার ও নিরাপত্তা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। এ প্রেক্ষাপটে রোহিঙ্গা সংকটের একটি ব্যাপক, টেকসই ও অন্তর্ভুক্তিমূলক সমাধানের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

গুতেরেস বলেছেন, মিয়ানমারে সংঘটিত সকল আন্তর্জাতিক অপরাধের সাথে জড়িতদের অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে। একই সাথে মিয়ানমার ও এর জনগণের জন্য একটি টেকসই এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক রাজনৈতিক ভবিষ্যত গড়ে তোলার জন্য নির্যাতিতদের বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে।