১১:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

যশোরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১০:৫১:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ জুন ২০২২
  • / ৪৮৪ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

যশোর সদর উপজেলার লেবুতলা ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর মহিম নামে এক যুবক এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতিতা জানান, রবিবার দুপুরে তিনি তার পোষা হাঁস নিয়ে পুকুরে যাচ্ছিলেন। এ সময় একই গ্রামের মহিম (২৮) নামে এক যুবক তার মুখ চেপে পাশের পাট ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে কোমল পানীয়ের বোতলে কিছু খেতে বাধ্য করে। এক পর্যায়ে তার মাথা ঝিমঝিম করতে থাকে। মহিম তাকে ধর্ষণ করে ফেলে চলে যায়। জ্ঞান ফিরলে তিনি বাড়িতে ফিরে তার মাকে ঘটনাটি জানান।

মেয়েটির মা জানান, রোববার রাত একটার দিকে মেয়েটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে গতকাল দুপুর পর্যন্ত তারা থানায় অভিযোগ করেননি।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মো. আব্দুস সামাদ জানান, মেয়েটিকে যৌন নিপীড়ক হিসেবে ভর্তি করে গাইনী ওয়ার্ডে পাঠানো হয়েছে। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রিপোর্ট এলে বিস্তারিত জানা যাবে।

যশোর কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। এরপরও খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয় এবং ভুক্তভোগীদের মামলা করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

যশোরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে

আপডেট সময় ১০:৫১:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ জুন ২০২২

যশোর সদর উপজেলার লেবুতলা ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর মহিম নামে এক যুবক এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতিতা জানান, রবিবার দুপুরে তিনি তার পোষা হাঁস নিয়ে পুকুরে যাচ্ছিলেন। এ সময় একই গ্রামের মহিম (২৮) নামে এক যুবক তার মুখ চেপে পাশের পাট ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে কোমল পানীয়ের বোতলে কিছু খেতে বাধ্য করে। এক পর্যায়ে তার মাথা ঝিমঝিম করতে থাকে। মহিম তাকে ধর্ষণ করে ফেলে চলে যায়। জ্ঞান ফিরলে তিনি বাড়িতে ফিরে তার মাকে ঘটনাটি জানান।

মেয়েটির মা জানান, রোববার রাত একটার দিকে মেয়েটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে গতকাল দুপুর পর্যন্ত তারা থানায় অভিযোগ করেননি।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মো. আব্দুস সামাদ জানান, মেয়েটিকে যৌন নিপীড়ক হিসেবে ভর্তি করে গাইনী ওয়ার্ডে পাঠানো হয়েছে। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রিপোর্ট এলে বিস্তারিত জানা যাবে।

যশোর কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। এরপরও খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয় এবং ভুক্তভোগীদের মামলা করার পরামর্শ দেওয়া হয়।