০৭:০২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩

মাদক মামলায় নিউমার্কেট থানা ছাত্রলীগের সভাপতিকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:৪৫:০০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ জুলাই ২০২২
  • / ৮৩৯ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

প্রায় এক শতাব্দী আগে দায়ের করা মাদক মামলায় নিউমার্কেট থানা ছাত্রলীগের সভাপতি প্রিন্স আবদুল খালেকসহ দুজনকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪-এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এ রায় দেন। সাজাপ্রাপ্ত অপর ব্যক্তি হলেন ইফতেখার সুমন। রায় ঘোষণার পর তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ওই আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর ফারুক উজ্জামান ভূঁইয়া এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ঢাকা মহানগর উত্তর শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম হোসেন জানান, প্রিন্স আব্দুল খালেক নিউমার্কেট থানা ছাত্রলীগের সভাপতি। তবে প্রিন্স আবদুল খালেক মাদক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়েছেন কি না, তা তিনি জানেন না। ইব্রাহিম হোসেন বলেন, সংগঠনের দায়িত্বশীল নেতা মাদক মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে সংবিধান অনুযায়ী তাকে পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হবে।

জানতে চাইলে নিউমার্কেট থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হাসান বিডি ওপেন নিউজকে বলেন, বিষয়টি অনেকের কাছ থেকে শোনার পর আমি তার (প্রিন্স আবদুল খালেক) বাসায় যোগাযোগ করি। তিনি ভারতে আছেন বলে বাড়ি থেকে জানা গেছে। আমি এখনো নিশ্চিত না. বিষয়টি খতিয়ে দেখতে পারেন।’

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রিন্স আব্দুল খালেকের মা, বোন, শ্যালিকা, চাচা ও চাচা তাকে দেখতে আসেন। কিন্তু দেখা করতে পারেননি। প্রিন্স আবদুল খালেককে সাত দিনের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১১ সালের ২৫ মে রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকা থেকে ২৫ বোতল ফেনসিডিলসহ প্রিন্স আবদুল খালেক ও ইফতেখার হোসেনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-২।এ ঘটনায় র‌্যাব কর্মকর্তা আজিজুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেন। বাদী হিসেবে নিউমার্কেট থানায় মো. মামলাটি তদন্ত করে ওই বছরের ১৬ জুন আদালতে দুজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। পরের বছর, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১২ তারিখে আদালত দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে। এই মামলায় তারা জামিনে ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে পাঁচজন সাক্ষীকে আদালতে হাজির করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

মাদক মামলায় নিউমার্কেট থানা ছাত্রলীগের সভাপতিকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত

আপডেট সময় ০৫:৪৫:০০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ জুলাই ২০২২

প্রায় এক শতাব্দী আগে দায়ের করা মাদক মামলায় নিউমার্কেট থানা ছাত্রলীগের সভাপতি প্রিন্স আবদুল খালেকসহ দুজনকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪-এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এ রায় দেন। সাজাপ্রাপ্ত অপর ব্যক্তি হলেন ইফতেখার সুমন। রায় ঘোষণার পর তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ওই আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর ফারুক উজ্জামান ভূঁইয়া এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ঢাকা মহানগর উত্তর শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম হোসেন জানান, প্রিন্স আব্দুল খালেক নিউমার্কেট থানা ছাত্রলীগের সভাপতি। তবে প্রিন্স আবদুল খালেক মাদক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়েছেন কি না, তা তিনি জানেন না। ইব্রাহিম হোসেন বলেন, সংগঠনের দায়িত্বশীল নেতা মাদক মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে সংবিধান অনুযায়ী তাকে পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হবে।

জানতে চাইলে নিউমার্কেট থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হাসান বিডি ওপেন নিউজকে বলেন, বিষয়টি অনেকের কাছ থেকে শোনার পর আমি তার (প্রিন্স আবদুল খালেক) বাসায় যোগাযোগ করি। তিনি ভারতে আছেন বলে বাড়ি থেকে জানা গেছে। আমি এখনো নিশ্চিত না. বিষয়টি খতিয়ে দেখতে পারেন।’

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রিন্স আব্দুল খালেকের মা, বোন, শ্যালিকা, চাচা ও চাচা তাকে দেখতে আসেন। কিন্তু দেখা করতে পারেননি। প্রিন্স আবদুল খালেককে সাত দিনের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১১ সালের ২৫ মে রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকা থেকে ২৫ বোতল ফেনসিডিলসহ প্রিন্স আবদুল খালেক ও ইফতেখার হোসেনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-২।এ ঘটনায় র‌্যাব কর্মকর্তা আজিজুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেন। বাদী হিসেবে নিউমার্কেট থানায় মো. মামলাটি তদন্ত করে ওই বছরের ১৬ জুন আদালতে দুজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। পরের বছর, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১২ তারিখে আদালত দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে। এই মামলায় তারা জামিনে ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে পাঁচজন সাক্ষীকে আদালতে হাজির করা হয়।