০৯:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ফুটবল প্রতিযোগিতা ২০২২ সমাপ্ত

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:২০:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ অগাস্ট ২০২২
  • / ১০৪০ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ফুটবল প্রতিযোগিতা ২০২২ সমাপ্ত

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ফুটবল প্রতিযোগিতা-২০২২ এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান আজ  বৃহস্পতিবার শহীদ সালাহউদ্দিন সেনানিবাসে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ১৯ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার ঘাটাইল এরিয়া মেজর জেনারেল নকিব আহমেদ চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। এই প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বিভিন্ন সেনা অঞ্চলের মোট ১৬টি দল অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতায়, নবম পদাতিক ডিভিশন দল চ্যাম্পিয়ন এবং লজিস্টিকস এরিয়া দল রানার্স আপ হিসাবে আবির্ভূত হয়। 

উলে­খ্য, উক্ত প্রতিযোগিতা গত ২৮ জুলাই ২০২২ তারিখে শুরু হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং শহীদ সালাহউদ্দিন সেনানিবাসের বিভিন্ন ইউনিটের অফিসার, জুনিয়র কমিশন্ড অফিসার এবং অন্যান্য পদবীর সৈনিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সেনাবাহিনীর সদস্যদের মধ্যে শারীরিক সক্ষমতা, খেলাধুলার মান উন্নয়ন এবং খেলোয়াড় সুলভ মনোভাবের বিকাশ ও পারস্পরিক সৌহার্দ্য আরো মজবুত হবে বলে আশা করা যায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ফুটবল প্রতিযোগিতা ২০২২ সমাপ্ত

আপডেট সময় ০৫:২০:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ অগাস্ট ২০২২

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ফুটবল প্রতিযোগিতা-২০২২ এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান আজ  বৃহস্পতিবার শহীদ সালাহউদ্দিন সেনানিবাসে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ১৯ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার ঘাটাইল এরিয়া মেজর জেনারেল নকিব আহমেদ চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। এই প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বিভিন্ন সেনা অঞ্চলের মোট ১৬টি দল অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতায়, নবম পদাতিক ডিভিশন দল চ্যাম্পিয়ন এবং লজিস্টিকস এরিয়া দল রানার্স আপ হিসাবে আবির্ভূত হয়। 

উলে­খ্য, উক্ত প্রতিযোগিতা গত ২৮ জুলাই ২০২২ তারিখে শুরু হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং শহীদ সালাহউদ্দিন সেনানিবাসের বিভিন্ন ইউনিটের অফিসার, জুনিয়র কমিশন্ড অফিসার এবং অন্যান্য পদবীর সৈনিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সেনাবাহিনীর সদস্যদের মধ্যে শারীরিক সক্ষমতা, খেলাধুলার মান উন্নয়ন এবং খেলোয়াড় সুলভ মনোভাবের বিকাশ ও পারস্পরিক সৌহার্দ্য আরো মজবুত হবে বলে আশা করা যায়।