১২:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

বন্যাপ্রবণ ১৪ জেলার জন্য ৫০ কোটি ডলার দেবে বিশ্বব্যাংক

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:৪৯:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ জুলাই ২০২২
  • / ১১২১ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

বিশ্বব্যাংক দেশের ১৪টি বন্যাপ্রবণ জেলায় দুর্যোগ প্রস্তুতির উন্নয়নে ৫০ কোটি ডলার ঋণ দেবে। বর্তমান বাজারদরে এর পরিমাণ ৪ হাজার ৬৯৭ কোটি টাকা। শনিবার বিশ্বব্যাংকের পর্ষদ সভায় এই ঋণ অনুমোদন করা হয়। বিশ্বব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দেশের ১৪টি বন্যাপ্রবণ জেলায় এ অর্থ ব্যয় করা হবে। জেলাগুলো হলো- নীলফামারী, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, রংপুর, গাইবান্ধা, বগুড়া, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ। বর্তমান তিস্তা-ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, পদ্মা, সুরমা-মেঘনা নদীর অববাহিকা তুলনামূলকভাবে বেশি বন্যাপ্রবণ। তাই এসব জেলা নির্বাচন করা হয়েছে।

অভিযোজন এবং দুর্বলতা হ্রাস প্রকল্পের জন্য রেসিলিয়েন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচারের অধীনে এই পরিমাণ ব্যয় করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ১ লাখ ২৫ হাজার মানুষ উপকৃত হবেন।

এ প্রকল্পের আওতায় নদীর তীরবর্তী ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় ৫ শতাধিক আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। এ ছাড়া সড়ক ও জলবায়ু পরিবর্তন সহায়ক অবকাঠামো তৈরি করা হবে। বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রগুলি স্বাভাবিক সময়ে প্রাথমিক বিদ্যালয় হিসাবে ব্যবহার করা হবে। এ ছাড়া প্রকল্পের আওতায় ওই সব আশ্রয়কেন্দ্রে সৌরবিদ্যুতের ব্যবস্থা তৈরি করা হবে। এছাড়া থাকবে বিশুদ্ধ পানি, স্যানিটেশন ও অন্যান্য স্যানিটারি সুবিধা। এছাড়া নারীসহ ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর জন্য বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে। একটি ডেটা সেন্টার কেন্দ্রীয়ভাবে অবস্থিত হবে। যেখান থেকে তাৎক্ষণিকভাবে জানা যাবে কোন আশ্রয়কেন্দ্রের অবস্থা।

এ প্রসঙ্গে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন বলেন, ‘সম্প্রতি সিলেটের হৃদয়বিদারক বন্যা পরিস্থিতি জলবায়ু পরিবর্তনের বিপদের কথা মনে করিয়ে দিয়েছে। আমাদের দুই পক্ষের মধ্যে বিগত পাঁচ দশকের অংশীদারিত্ব দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার উন্নতিতে সাহায্য করেছে।

বিশ্বব্যাংকের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (আইডিএ) কাছ থেকে নমনীয় ঋণ হিসেবে এই অর্থ পাচ্ছে বাংলাদেশ। সুদ – প্রকৃত পরিশোধের সময়কাল 30 বছর। মাঝখানে পাঁচ বছরের গ্রেস পিরিয়ড আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বন্যাপ্রবণ ১৪ জেলার জন্য ৫০ কোটি ডলার দেবে বিশ্বব্যাংক

আপডেট সময় ০৩:৪৯:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ জুলাই ২০২২

বিশ্বব্যাংক দেশের ১৪টি বন্যাপ্রবণ জেলায় দুর্যোগ প্রস্তুতির উন্নয়নে ৫০ কোটি ডলার ঋণ দেবে। বর্তমান বাজারদরে এর পরিমাণ ৪ হাজার ৬৯৭ কোটি টাকা। শনিবার বিশ্বব্যাংকের পর্ষদ সভায় এই ঋণ অনুমোদন করা হয়। বিশ্বব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দেশের ১৪টি বন্যাপ্রবণ জেলায় এ অর্থ ব্যয় করা হবে। জেলাগুলো হলো- নীলফামারী, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, রংপুর, গাইবান্ধা, বগুড়া, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ। বর্তমান তিস্তা-ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, পদ্মা, সুরমা-মেঘনা নদীর অববাহিকা তুলনামূলকভাবে বেশি বন্যাপ্রবণ। তাই এসব জেলা নির্বাচন করা হয়েছে।

অভিযোজন এবং দুর্বলতা হ্রাস প্রকল্পের জন্য রেসিলিয়েন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচারের অধীনে এই পরিমাণ ব্যয় করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ১ লাখ ২৫ হাজার মানুষ উপকৃত হবেন।

এ প্রকল্পের আওতায় নদীর তীরবর্তী ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় ৫ শতাধিক আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। এ ছাড়া সড়ক ও জলবায়ু পরিবর্তন সহায়ক অবকাঠামো তৈরি করা হবে। বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রগুলি স্বাভাবিক সময়ে প্রাথমিক বিদ্যালয় হিসাবে ব্যবহার করা হবে। এ ছাড়া প্রকল্পের আওতায় ওই সব আশ্রয়কেন্দ্রে সৌরবিদ্যুতের ব্যবস্থা তৈরি করা হবে। এছাড়া থাকবে বিশুদ্ধ পানি, স্যানিটেশন ও অন্যান্য স্যানিটারি সুবিধা। এছাড়া নারীসহ ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর জন্য বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে। একটি ডেটা সেন্টার কেন্দ্রীয়ভাবে অবস্থিত হবে। যেখান থেকে তাৎক্ষণিকভাবে জানা যাবে কোন আশ্রয়কেন্দ্রের অবস্থা।

এ প্রসঙ্গে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন বলেন, ‘সম্প্রতি সিলেটের হৃদয়বিদারক বন্যা পরিস্থিতি জলবায়ু পরিবর্তনের বিপদের কথা মনে করিয়ে দিয়েছে। আমাদের দুই পক্ষের মধ্যে বিগত পাঁচ দশকের অংশীদারিত্ব দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার উন্নতিতে সাহায্য করেছে।

বিশ্বব্যাংকের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (আইডিএ) কাছ থেকে নমনীয় ঋণ হিসেবে এই অর্থ পাচ্ছে বাংলাদেশ। সুদ – প্রকৃত পরিশোধের সময়কাল 30 বছর। মাঝখানে পাঁচ বছরের গ্রেস পিরিয়ড আছে।