০৯:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

প্রবল স্রোতে নদীর মাঝখানে দুটি ফেরির সংঘর্ষ, দুটি গাড়ির মধ্যে ১টি পিষ্ট

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:৩৪:২৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৯ জুন ২০২২
  • / ৪১৯ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং ও শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি নৌপথে শরীয়তপুরে দুটি ফেরির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। ফেরিতে থাকা একটি গাড়ির ধাক্কায় পিকআপ ভ্যানের চালক নিহত হন। একজন নিখোঁজ রয়েছে। শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম খোকন সিকদার (৩৮)। তিনি জানান, ঝালকাঠির কাঁথালিয়া উপজেলার চিংড়াখালী গ্রামের মো. হারুন সিকদারের ছেলে মো. তিনি স্ত্রী, এক মেয়ে ও তিন ছেলে রেখে গেছেন। পিরোজপুরের চরখালী থেকে মাছ নিয়ে ঢাকায় যাচ্ছিলেন তিনি।

দুর্ঘটনার কবলে পড়া ফেরি দুটি হলো সুফিয়া কামাল ও ফেরি বেগম রোকেয়া।

গতরাতে বেগম রোকেয়া নামের ফেরিটি ৩০-৩৫টি গাড়ি নিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে শরীয়তপুরের দিকে যাচ্ছিল। সুফিয়া কামাল নামের ফেরিটি শরীয়তপুরের মাঝিকন্দি ঘাট থেকে শিমুলিয়া ঘাটের দিকে যাচ্ছিল। এই ফেরিতে ৩৫-৪০টি গাড়ি ছিল।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ফেরি দুটি শরীয়তপুর টার্নিং পয়েন্টে আসে। প্রবল স্রোতের কারণে ফেরি দুটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সুফিয়া কামাল ফেরিতে থাকা পিকআপ ভ্যানের চালকের মৃত্যু হয়েছে। আর বেগম রোকেয়া ফেরিতে একজন নিখোঁজ হয়েছেন। দুর্ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. আবু তাহের মিয়া জানান, নিহত চালক তার গাড়ি থেকে নেমে দুই গাড়ির মাঝখানে দাঁড়ান। সংঘর্ষের সময় ফেরিতে থাকা একটি গাড়ি অন্য একটি গাড়ির ওপর পড়ে এবং চালক মাঝপথে পিষ্ট হয়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। ফেরিতে থাকা অন্তত ১১টি ব্যক্তিগত গাড়ি, মোটরসাইকেল ও অন্যান্য যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। স্বজনদের অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ জানান, দুর্ঘটনার পর ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। এই নৌপথে মোট পাঁচটি ফেরি চলাচল করছে।

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং ও শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি নৌপথে শরীয়তপুরে দুটি ফেরির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। ফেরিতে থাকা একটি গাড়ির ধাক্কায় পিকআপ ভ্যানের চালক নিহত হন। একজন নিখোঁজ রয়েছে। শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম খোকন সিকদার (৩৮)। তিনি জানান, ঝালকাঠির কাঁথালিয়া উপজেলার চিংড়াখালী গ্রামের মো. হারুন সিকদারের ছেলে মো. তিনি স্ত্রী, এক মেয়ে ও তিন ছেলে রেখে গেছেন। পিরোজপুরের চরখালী থেকে মাছ নিয়ে ঢাকায় যাচ্ছিলেন তিনি।

দুর্ঘটনার কবলে পড়া ফেরি দুটি হলো সুফিয়া কামাল ও ফেরি বেগম রোকেয়া।

গতরাতে বেগম রোকেয়া নামের ফেরিটি ৩০-৩৫টি গাড়ি নিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে শরীয়তপুরের দিকে যাচ্ছিল। সুফিয়া কামাল নামের ফেরিটি শরীয়তপুরের মাঝিকন্দি ঘাট থেকে শিমুলিয়া ঘাটের দিকে যাচ্ছিল। এই ফেরিতে ৩৫-৪০টি গাড়ি ছিল।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ফেরি দুটি শরীয়তপুর টার্নিং পয়েন্টে আসে। প্রবল স্রোতের কারণে ফেরি দুটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সুফিয়া কামাল ফেরিতে থাকা পিকআপ ভ্যানের চালকের মৃত্যু হয়েছে। আর বেগম রোকেয়া ফেরিতে একজন নিখোঁজ হয়েছেন। দুর্ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. আবু তাহের মিয়া জানান, নিহত চালক তার গাড়ি থেকে নেমে দুই গাড়ির মাঝখানে দাঁড়ান। সংঘর্ষের সময় ফেরিতে থাকা একটি গাড়ি অন্য একটি গাড়ির ওপর পড়ে এবং চালক মাঝপথে পিষ্ট হয়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। ফেরিতে থাকা অন্তত ১১টি ব্যক্তিগত গাড়ি, মোটরসাইকেল ও অন্যান্য যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। স্বজনদের অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ জানান, দুর্ঘটনার পর ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। এই নৌপথে মোট পাঁচটি ফেরি চলাচল করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

প্রবল স্রোতে নদীর মাঝখানে দুটি ফেরির সংঘর্ষ, দুটি গাড়ির মধ্যে ১টি পিষ্ট

আপডেট সময় ০৬:৩৪:২৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৯ জুন ২০২২

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং ও শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি নৌপথে শরীয়তপুরে দুটি ফেরির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। ফেরিতে থাকা একটি গাড়ির ধাক্কায় পিকআপ ভ্যানের চালক নিহত হন। একজন নিখোঁজ রয়েছে। শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম খোকন সিকদার (৩৮)। তিনি জানান, ঝালকাঠির কাঁথালিয়া উপজেলার চিংড়াখালী গ্রামের মো. হারুন সিকদারের ছেলে মো. তিনি স্ত্রী, এক মেয়ে ও তিন ছেলে রেখে গেছেন। পিরোজপুরের চরখালী থেকে মাছ নিয়ে ঢাকায় যাচ্ছিলেন তিনি।

দুর্ঘটনার কবলে পড়া ফেরি দুটি হলো সুফিয়া কামাল ও ফেরি বেগম রোকেয়া।

গতরাতে বেগম রোকেয়া নামের ফেরিটি ৩০-৩৫টি গাড়ি নিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে শরীয়তপুরের দিকে যাচ্ছিল। সুফিয়া কামাল নামের ফেরিটি শরীয়তপুরের মাঝিকন্দি ঘাট থেকে শিমুলিয়া ঘাটের দিকে যাচ্ছিল। এই ফেরিতে ৩৫-৪০টি গাড়ি ছিল।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ফেরি দুটি শরীয়তপুর টার্নিং পয়েন্টে আসে। প্রবল স্রোতের কারণে ফেরি দুটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সুফিয়া কামাল ফেরিতে থাকা পিকআপ ভ্যানের চালকের মৃত্যু হয়েছে। আর বেগম রোকেয়া ফেরিতে একজন নিখোঁজ হয়েছেন। দুর্ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. আবু তাহের মিয়া জানান, নিহত চালক তার গাড়ি থেকে নেমে দুই গাড়ির মাঝখানে দাঁড়ান। সংঘর্ষের সময় ফেরিতে থাকা একটি গাড়ি অন্য একটি গাড়ির ওপর পড়ে এবং চালক মাঝপথে পিষ্ট হয়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। ফেরিতে থাকা অন্তত ১১টি ব্যক্তিগত গাড়ি, মোটরসাইকেল ও অন্যান্য যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। স্বজনদের অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ জানান, দুর্ঘটনার পর ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। এই নৌপথে মোট পাঁচটি ফেরি চলাচল করছে।

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং ও শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি নৌপথে শরীয়তপুরে দুটি ফেরির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। ফেরিতে থাকা একটি গাড়ির ধাক্কায় পিকআপ ভ্যানের চালক নিহত হন। একজন নিখোঁজ রয়েছে। শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম খোকন সিকদার (৩৮)। তিনি জানান, ঝালকাঠির কাঁথালিয়া উপজেলার চিংড়াখালী গ্রামের মো. হারুন সিকদারের ছেলে মো. তিনি স্ত্রী, এক মেয়ে ও তিন ছেলে রেখে গেছেন। পিরোজপুরের চরখালী থেকে মাছ নিয়ে ঢাকায় যাচ্ছিলেন তিনি।

দুর্ঘটনার কবলে পড়া ফেরি দুটি হলো সুফিয়া কামাল ও ফেরি বেগম রোকেয়া।

গতরাতে বেগম রোকেয়া নামের ফেরিটি ৩০-৩৫টি গাড়ি নিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে শরীয়তপুরের দিকে যাচ্ছিল। সুফিয়া কামাল নামের ফেরিটি শরীয়তপুরের মাঝিকন্দি ঘাট থেকে শিমুলিয়া ঘাটের দিকে যাচ্ছিল। এই ফেরিতে ৩৫-৪০টি গাড়ি ছিল।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ফেরি দুটি শরীয়তপুর টার্নিং পয়েন্টে আসে। প্রবল স্রোতের কারণে ফেরি দুটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সুফিয়া কামাল ফেরিতে থাকা পিকআপ ভ্যানের চালকের মৃত্যু হয়েছে। আর বেগম রোকেয়া ফেরিতে একজন নিখোঁজ হয়েছেন। দুর্ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. আবু তাহের মিয়া জানান, নিহত চালক তার গাড়ি থেকে নেমে দুই গাড়ির মাঝখানে দাঁড়ান। সংঘর্ষের সময় ফেরিতে থাকা একটি গাড়ি অন্য একটি গাড়ির ওপর পড়ে এবং চালক মাঝপথে পিষ্ট হয়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। ফেরিতে থাকা অন্তত ১১টি ব্যক্তিগত গাড়ি, মোটরসাইকেল ও অন্যান্য যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। স্বজনদের অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ জানান, দুর্ঘটনার পর ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। এই নৌপথে মোট পাঁচটি ফেরি চলাচল করছে।