১০:০৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

প্রথম চালানে আট হাজার কেজি ইলিশ ভারতে গেছে

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:০৪:৫৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ৯০৭ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

দুর্গাপূজা উপলক্ষে সোমবার যশোরের বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ইলিশ মাছের প্রথম চালান ভারতে পাঠানো হয়েছে। প্রথম দিনে আট হাজার কেজি ইলিশ রপ্তানি করেছে একটি মাছ রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান। প্রতি কেজি আকারে ১০ মার্কিন ডলার (৯৪৯ টাকা) দরে ইলিশ রপ্তানি করা হয়।

চলতি বছর ভারতে রপ্তানির জন্য ৪৯টি কোম্পানির অনুকূলে ২ হাজার ৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। প্রতিটি কোম্পানি ৫০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানি করতে পারে।

বেনাপোল কাস্টম হাউস সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যায় শুল্ক ও বন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ইলিশ বোঝাই ট্রাকের প্রথম চালানটি ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশ করে। প্রথম চালানে রপ্তানিকারক বরিশালের মহিমা এন্টারপ্রাইজ। আমদানিকারক কোম্পানি ভারতের এসআর ইন্টারন্যাশনাল। প্রথম চালানে প্রতি কেজি ১০ ডলারে ইলিশ মাছ রপ্তানি করা হয়। যেসব প্রতিষ্ঠান বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন পেয়েছে তাদের আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সব ইলিশ রপ্তানি করতে হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পদ্মার ইলিশ পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিদের প্রিয় হলেও চাহিদার কথা বিবেচনা করে বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন সময়ে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। দেশের. ২০১২ সালে বাংলাদেশ থেকে ভারতে ইলিশ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। তবে এর পর থেকে বাংলাদেশ সরকার কয়েকবার ভারত সরকারের কাছে শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে ইলিশ পাঠিয়েছে। গত দুই বছরে আবারও রপ্তানি হচ্ছে ইলিশ।

বেনাপোল কাস্টম হাউসের কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল হাকিমBD OPEN NEWS

কে বলেন, প্রথম দিনে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে প্রতি কেজি ১০ ডলার দরে আট মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানি হয়েছে। এটি পচনশীল পণ্য হওয়ায় ইলিশের চালান শুল্ক ছাড়পত্রসহ রপ্তানি প্রক্রিয়া দ্রুত করতে কাস্টমসের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

প্রথম চালানে আট হাজার কেজি ইলিশ ভারতে গেছে

আপডেট সময় ০৫:০৪:৫৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

দুর্গাপূজা উপলক্ষে সোমবার যশোরের বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ইলিশ মাছের প্রথম চালান ভারতে পাঠানো হয়েছে। প্রথম দিনে আট হাজার কেজি ইলিশ রপ্তানি করেছে একটি মাছ রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান। প্রতি কেজি আকারে ১০ মার্কিন ডলার (৯৪৯ টাকা) দরে ইলিশ রপ্তানি করা হয়।

চলতি বছর ভারতে রপ্তানির জন্য ৪৯টি কোম্পানির অনুকূলে ২ হাজার ৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। প্রতিটি কোম্পানি ৫০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানি করতে পারে।

বেনাপোল কাস্টম হাউস সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যায় শুল্ক ও বন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ইলিশ বোঝাই ট্রাকের প্রথম চালানটি ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশ করে। প্রথম চালানে রপ্তানিকারক বরিশালের মহিমা এন্টারপ্রাইজ। আমদানিকারক কোম্পানি ভারতের এসআর ইন্টারন্যাশনাল। প্রথম চালানে প্রতি কেজি ১০ ডলারে ইলিশ মাছ রপ্তানি করা হয়। যেসব প্রতিষ্ঠান বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন পেয়েছে তাদের আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সব ইলিশ রপ্তানি করতে হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পদ্মার ইলিশ পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিদের প্রিয় হলেও চাহিদার কথা বিবেচনা করে বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন সময়ে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। দেশের. ২০১২ সালে বাংলাদেশ থেকে ভারতে ইলিশ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। তবে এর পর থেকে বাংলাদেশ সরকার কয়েকবার ভারত সরকারের কাছে শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে ইলিশ পাঠিয়েছে। গত দুই বছরে আবারও রপ্তানি হচ্ছে ইলিশ।

বেনাপোল কাস্টম হাউসের কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল হাকিমBD OPEN NEWS

কে বলেন, প্রথম দিনে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে প্রতি কেজি ১০ ডলার দরে আট মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানি হয়েছে। এটি পচনশীল পণ্য হওয়ায় ইলিশের চালান শুল্ক ছাড়পত্রসহ রপ্তানি প্রক্রিয়া দ্রুত করতে কাস্টমসের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।