০২:৪৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ নভেম্বর ২০২৩

প্রথম ঘণ্টায় প্রায় চার শতাংশ ভোট পড়েছে, বৃষ্টিতে ভোট পড়েছে কম

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:১০:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ জুন ২০২২
  • / ৩৭৩ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুল কেন্দ্রে ২ হাজার ৪৮১ ভোট পড়েছে। বুধবার সকালে ভোটগ্রহণের প্রথম ঘণ্টায় ৯৩টি কেন্দ্রে ভোট পড়েছে, যা মোট ভোটের ৪ শতাংশের কম। বৃষ্টি শুরু হওয়ায় নগরীর লালমাই এলাকায় অবস্থিত কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি আরও কমেছে।

আজ সকাল থেকে কেন্দ্রের গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলের সামনের সড়কে নৌকা প্রার্থীর ব্যাজধারীরা অবস্থান নিলেও কেন্দ্রের আশেপাশে অন্য প্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকরা নেই। সেখানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের জোরালো উপস্থিতি রয়েছে। ভোটার ছাড়া কাউকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। কেন্দ্রে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের পোলিং এজেন্টরা উপস্থিত রয়েছেন।

কেন্দ্রের ঠিক পেছনেই আবু তাহেরের বাড়ি। ৬৫ বছর বয়সী আবু তাহের আজ সকালে ভোট দিয়েছেন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। কোন জালিয়াতি ছিল না. আমি নিজে ভোট দিতে পেরেছি। ‘

সরকারি ল্যাবরেটরি স্কুলে সাতটি ভোটকেন্দ্র। প্রথম ঘণ্টায় ৫ নম্বর কক্ষে মাত্র ৪টি ভোট পড়েছে। ৬ নম্বর বুথে সবচেয়ে বেশি ২০টি ভোট পড়েছে। প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা রয়েছে।

24 নং ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা 9,017 জন। এ ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন ৫ জন। লাতিমের প্রতীক আবু হানিফ, নাসিরউদ্দিনের প্রতীক ঠেলাগাড়ি, ফজল খানের প্রতীক মিষ্টি কুমড়া, মহিবুর রহমানের প্রতীক ঘুড়ি এবং মোস্তফা কামালের প্রতীক ট্রাক্টর।

সকাল ৯টার দিকে হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হয়। ভোটাররা সারিবদ্ধ হয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করেন। অনেকে আবার আশ্রয় নিয়েছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের কাছে। প্রায় 20 মিনিট ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। নতুন ভোটাররা কেউই কেন্দ্রে আসেননি।

কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আমির হোসেন প্রথম আলো</em>কে বলেন, ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে। সুষ্ঠু ভোটের জন্য কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। বৃষ্টির কারণে ভোটাররা ভোগান্তিতে পড়েছেন। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়বে।

এটি কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের তৃতীয় নির্বাচন। ১০৫টি ভোট কেন্দ্রের ৬৪০টি বুথে ইভিএমে ভোট হচ্ছে। কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ২৬টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার ২ লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে পাঁচজন প্রার্থী রয়েছেন। সর্বশেষ ২০১৬ সালের ৩০ মার্চ কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে মনিরুল ইসলাম (সাক্কু) ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হন। গত নির্বাচনে গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুল কেন্দ্রে মনিরুল ইসলাম বিজয়ী হন।

এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক (টেবিল ঘড়ি) ও আওয়ামী লীগের আরফানুল হক (নাউকা)। বাকি তিনজন হলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের রাশেদুল ইসলাম (হাত পাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ নিজামউদ্দিন (ঘোড়া) ও কামরুল আহসান (হরিণ)। তাদের মধ্যে মনিরুল হক বিএনপি ও নিজামউদ্দিন স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা ছিলেন। সিদ্ধান্ত অমান্য করায় তাদের দুজনকেই বহিষ্কার করে বিএনপি। মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো.

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

প্রথম ঘণ্টায় প্রায় চার শতাংশ ভোট পড়েছে, বৃষ্টিতে ভোট পড়েছে কম

আপডেট সময় ০৫:১০:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ জুন ২০২২

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুল কেন্দ্রে ২ হাজার ৪৮১ ভোট পড়েছে। বুধবার সকালে ভোটগ্রহণের প্রথম ঘণ্টায় ৯৩টি কেন্দ্রে ভোট পড়েছে, যা মোট ভোটের ৪ শতাংশের কম। বৃষ্টি শুরু হওয়ায় নগরীর লালমাই এলাকায় অবস্থিত কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি আরও কমেছে।

আজ সকাল থেকে কেন্দ্রের গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলের সামনের সড়কে নৌকা প্রার্থীর ব্যাজধারীরা অবস্থান নিলেও কেন্দ্রের আশেপাশে অন্য প্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকরা নেই। সেখানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের জোরালো উপস্থিতি রয়েছে। ভোটার ছাড়া কাউকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। কেন্দ্রে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের পোলিং এজেন্টরা উপস্থিত রয়েছেন।

কেন্দ্রের ঠিক পেছনেই আবু তাহেরের বাড়ি। ৬৫ বছর বয়সী আবু তাহের আজ সকালে ভোট দিয়েছেন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। কোন জালিয়াতি ছিল না. আমি নিজে ভোট দিতে পেরেছি। ‘

সরকারি ল্যাবরেটরি স্কুলে সাতটি ভোটকেন্দ্র। প্রথম ঘণ্টায় ৫ নম্বর কক্ষে মাত্র ৪টি ভোট পড়েছে। ৬ নম্বর বুথে সবচেয়ে বেশি ২০টি ভোট পড়েছে। প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা রয়েছে।

24 নং ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা 9,017 জন। এ ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন ৫ জন। লাতিমের প্রতীক আবু হানিফ, নাসিরউদ্দিনের প্রতীক ঠেলাগাড়ি, ফজল খানের প্রতীক মিষ্টি কুমড়া, মহিবুর রহমানের প্রতীক ঘুড়ি এবং মোস্তফা কামালের প্রতীক ট্রাক্টর।

সকাল ৯টার দিকে হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হয়। ভোটাররা সারিবদ্ধ হয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করেন। অনেকে আবার আশ্রয় নিয়েছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের কাছে। প্রায় 20 মিনিট ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। নতুন ভোটাররা কেউই কেন্দ্রে আসেননি।

কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আমির হোসেন প্রথম আলো</em>কে বলেন, ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে। সুষ্ঠু ভোটের জন্য কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। বৃষ্টির কারণে ভোটাররা ভোগান্তিতে পড়েছেন। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়বে।

এটি কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের তৃতীয় নির্বাচন। ১০৫টি ভোট কেন্দ্রের ৬৪০টি বুথে ইভিএমে ভোট হচ্ছে। কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ২৬টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার ২ লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে পাঁচজন প্রার্থী রয়েছেন। সর্বশেষ ২০১৬ সালের ৩০ মার্চ কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে মনিরুল ইসলাম (সাক্কু) ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হন। গত নির্বাচনে গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুল কেন্দ্রে মনিরুল ইসলাম বিজয়ী হন।

এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক (টেবিল ঘড়ি) ও আওয়ামী লীগের আরফানুল হক (নাউকা)। বাকি তিনজন হলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের রাশেদুল ইসলাম (হাত পাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ নিজামউদ্দিন (ঘোড়া) ও কামরুল আহসান (হরিণ)। তাদের মধ্যে মনিরুল হক বিএনপি ও নিজামউদ্দিন স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা ছিলেন। সিদ্ধান্ত অমান্য করায় তাদের দুজনকেই বহিষ্কার করে বিএনপি। মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো.