১০:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

থাইল্যান্ডে ভাত আর কাঁচা মরিচের জন্য কেন অস্থির ছিলেন নায়িকা বুবলী?

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:০৬:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ৭৫১ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

প্রথম সিনেমা ‘বসগিরি’ দিয়ে আলোচনায় আসেন অভিনেত্রী শবনম বুবলী। এছাড়া এ সিনেমার গানে তৎকালীন নবাগত অভিনেত্রীর নাচও দর্শকরা পছন্দ করেছেন। সিনেমার ‘দিল দিল’ গানটি কয়েকদিন আগে ১০০ মিলিয়ন ভিউ পেয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ফেসবুক লাইভে এসে গানটির সাফল্যে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন এই অভিনেত্রী। গানের শুটিংয়ের বিভিন্ন মুহূর্তের কথা স্মরণ করে এই অভিনেত্রী বলেন, গানের শুটিং চলাকালীন মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে ভাত ও কাঁচা মরিচের জন্য অস্থির ছিলেন। এ সময় নায়িকার জন্য ভাত ও কাঁচা মরিচের আয়োজন করেন অভিনেতা শাকিব খান। শুধু দর্শক বা শ্রোতা নয়, ‘দিল দিল’ গানের ভক্ত অভিনেত্রী শবনম বুবলিও। তিনি গানের লোকেশন পছন্দ করতেন। শুটিং হয়েছে থাইল্যান্ডে। গানটির কোরিওগ্রাফি করেছেন আদিল শেখ। শুটিংয়ের সময়ের কথা মনে করে বুবলী বলেন, ‘চলচ্চিত্র জীবনে প্রথমবারের মতো ‘দিল দিল’ গানের শুটিংয়ে অংশ নিয়েছি। সাথে কিছু ড্রেস নিলাম। কিছু পরে কিনলাম। স্বল্প প্রস্তুতি নিয়ে গানটির শুটিং করেছি। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত গরমে শুটিং করি। কখনো জুস, ফল, এই-ওই খাবার এসেছে শুটিংয়ের সময়। দুপুরের খাবারের সময় আমার সাথে একটি মজার ঘটনা ঘটেছে। বিশেষ করে দেশের বাইরে গেলে সেখানকার দেশি খাবার ট্রাই করি। এর পাশাপাশি দুপুরে বা রাতের খাবারে ভাতের সঙ্গে অবশ্যই সবুজ মরিচ খেতে হবে। থাই খাবার খেলা। আমি এটা পছন্দ. তবে আমার মনে হয় একটু ভাত খাওয়া ভালো হবে। ভাত খেয়ে বিশ্রাম নেব তারপর শুটিং শুরু করব। তখন ভাত আর কাঁচা মরিচের জন্য আমারও মেজাজ খারাপ ছিল। সহ-অভিনেতা শাকিব খান আমার মন খারাপ লক্ষ্য করেছেন।

ছোটবেলা থেকেই বুবলী ঝাল খেতে খুব ভালোবাসে। বাড়িতে তার জন্য এভাবেই রান্না হতো। তিনি তার খাবারের প্লেটেও 7/8টি সবুজ মরিচ রাখতে চান। তা না হলে খাবার হজম হয় না। শুটিং শুরুর পরও সেই অভ্যাস রয়ে গেছে। এমনকি শুটিং শেষে খাবারের প্লেটে প্রথমে কাঁচা মরিচ নেন। শাকিব খান ও পরিচালকসহ শুটিং ইউনিটের অনেকেই তার ভাত ও কাঁচা মরিচ খাওয়ার অভ্যাসের কথা আগে থেকেই জানতেন। সে কারণেই খাবারের সময় বুবলীর মুখ দেখে বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন শাকিব খান বলে জানান বুবলী। প্রথম আলোতে বুবলী বলেন, “শাকিব খান বলেছেন, “ম্যাম মনে করেন ভাত আর কাঁচা মরিচ লাগবে, না হলে পটকা মাছের মতো মুখ ফুঁকবেন (হেসে)।” সবাই তখন হাসছিল। আমার খাওয়ার অভ্যাস আছে। ভাত আর কাঁচা মরিচ।আসলে শেয়ার করার কারণ হল বেশিরভাগ কাজই আসলে বেশি কঠিন। মজার স্মৃতি বিরল।কিন্তু দর্শকদের ভালোবাসার কারণে কষ্টের মূল্য আছে।

বুবলী জানান, সোশ্যাল মিডিয়ায় খুব একটা সক্রিয় নন তিনি। এমনকি ফেসবুক লাইভেও আসেন না তিনি। তবে এবার হঠাৎ লাইভে আসার কারণ হলো ভক্তদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো। বুবলী বলেন, “আমাদের “বসগিরি” ছবির সবগুলো গানই দর্শকদের ভালোবাসায় জনপ্রিয় হয়েছে। মানুষ এখনো ইউটিউবে ছবিটি দেখছে। আমার সবসময় মনে হয়েছে, আপনাদের ধন্যবাদ দেওয়া উচিত। আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ। এতে আমার নায়ক মুভিটি ছিল আমাদের প্রিয়, দুই বাংলার জনপ্রিয় সুপারস্টার শাকিব খান। আমাদের জুটিকে পছন্দ করার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। এভাবেই পাশে থাকবেন।’

‘বসগিরি’ গানটি গেয়েছেন কনা ও ইমরান। গানটির কথা লিখেছেন কবির বকুল। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন শওকত আলী ইমন। ছবিটি পরিচালনা করেছেন শামীম আহমেদ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

থাইল্যান্ডে ভাত আর কাঁচা মরিচের জন্য কেন অস্থির ছিলেন নায়িকা বুবলী?

আপডেট সময় ০৬:০৬:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

প্রথম সিনেমা ‘বসগিরি’ দিয়ে আলোচনায় আসেন অভিনেত্রী শবনম বুবলী। এছাড়া এ সিনেমার গানে তৎকালীন নবাগত অভিনেত্রীর নাচও দর্শকরা পছন্দ করেছেন। সিনেমার ‘দিল দিল’ গানটি কয়েকদিন আগে ১০০ মিলিয়ন ভিউ পেয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ফেসবুক লাইভে এসে গানটির সাফল্যে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন এই অভিনেত্রী। গানের শুটিংয়ের বিভিন্ন মুহূর্তের কথা স্মরণ করে এই অভিনেত্রী বলেন, গানের শুটিং চলাকালীন মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে ভাত ও কাঁচা মরিচের জন্য অস্থির ছিলেন। এ সময় নায়িকার জন্য ভাত ও কাঁচা মরিচের আয়োজন করেন অভিনেতা শাকিব খান। শুধু দর্শক বা শ্রোতা নয়, ‘দিল দিল’ গানের ভক্ত অভিনেত্রী শবনম বুবলিও। তিনি গানের লোকেশন পছন্দ করতেন। শুটিং হয়েছে থাইল্যান্ডে। গানটির কোরিওগ্রাফি করেছেন আদিল শেখ। শুটিংয়ের সময়ের কথা মনে করে বুবলী বলেন, ‘চলচ্চিত্র জীবনে প্রথমবারের মতো ‘দিল দিল’ গানের শুটিংয়ে অংশ নিয়েছি। সাথে কিছু ড্রেস নিলাম। কিছু পরে কিনলাম। স্বল্প প্রস্তুতি নিয়ে গানটির শুটিং করেছি। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত গরমে শুটিং করি। কখনো জুস, ফল, এই-ওই খাবার এসেছে শুটিংয়ের সময়। দুপুরের খাবারের সময় আমার সাথে একটি মজার ঘটনা ঘটেছে। বিশেষ করে দেশের বাইরে গেলে সেখানকার দেশি খাবার ট্রাই করি। এর পাশাপাশি দুপুরে বা রাতের খাবারে ভাতের সঙ্গে অবশ্যই সবুজ মরিচ খেতে হবে। থাই খাবার খেলা। আমি এটা পছন্দ. তবে আমার মনে হয় একটু ভাত খাওয়া ভালো হবে। ভাত খেয়ে বিশ্রাম নেব তারপর শুটিং শুরু করব। তখন ভাত আর কাঁচা মরিচের জন্য আমারও মেজাজ খারাপ ছিল। সহ-অভিনেতা শাকিব খান আমার মন খারাপ লক্ষ্য করেছেন।

ছোটবেলা থেকেই বুবলী ঝাল খেতে খুব ভালোবাসে। বাড়িতে তার জন্য এভাবেই রান্না হতো। তিনি তার খাবারের প্লেটেও 7/8টি সবুজ মরিচ রাখতে চান। তা না হলে খাবার হজম হয় না। শুটিং শুরুর পরও সেই অভ্যাস রয়ে গেছে। এমনকি শুটিং শেষে খাবারের প্লেটে প্রথমে কাঁচা মরিচ নেন। শাকিব খান ও পরিচালকসহ শুটিং ইউনিটের অনেকেই তার ভাত ও কাঁচা মরিচ খাওয়ার অভ্যাসের কথা আগে থেকেই জানতেন। সে কারণেই খাবারের সময় বুবলীর মুখ দেখে বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন শাকিব খান বলে জানান বুবলী। প্রথম আলোতে বুবলী বলেন, “শাকিব খান বলেছেন, “ম্যাম মনে করেন ভাত আর কাঁচা মরিচ লাগবে, না হলে পটকা মাছের মতো মুখ ফুঁকবেন (হেসে)।” সবাই তখন হাসছিল। আমার খাওয়ার অভ্যাস আছে। ভাত আর কাঁচা মরিচ।আসলে শেয়ার করার কারণ হল বেশিরভাগ কাজই আসলে বেশি কঠিন। মজার স্মৃতি বিরল।কিন্তু দর্শকদের ভালোবাসার কারণে কষ্টের মূল্য আছে।

বুবলী জানান, সোশ্যাল মিডিয়ায় খুব একটা সক্রিয় নন তিনি। এমনকি ফেসবুক লাইভেও আসেন না তিনি। তবে এবার হঠাৎ লাইভে আসার কারণ হলো ভক্তদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো। বুবলী বলেন, “আমাদের “বসগিরি” ছবির সবগুলো গানই দর্শকদের ভালোবাসায় জনপ্রিয় হয়েছে। মানুষ এখনো ইউটিউবে ছবিটি দেখছে। আমার সবসময় মনে হয়েছে, আপনাদের ধন্যবাদ দেওয়া উচিত। আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ। এতে আমার নায়ক মুভিটি ছিল আমাদের প্রিয়, দুই বাংলার জনপ্রিয় সুপারস্টার শাকিব খান। আমাদের জুটিকে পছন্দ করার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। এভাবেই পাশে থাকবেন।’

‘বসগিরি’ গানটি গেয়েছেন কনা ও ইমরান। গানটির কথা লিখেছেন কবির বকুল। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন শওকত আলী ইমন। ছবিটি পরিচালনা করেছেন শামীম আহমেদ।