১০:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

ঢাকায় বাস কম, যাত্রী দাঁড়িয়ে আছে

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:৫৬:৩৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ অগাস্ট ২০২২
  • / ৫৯৪ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ের লক্ষ্যে আজ বুধবার সকাল আটটা থেকে দেশের সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের অফিস শুরু হয়েছে। প্রথম দিন সকালে রাজধানী ঢাকায় গণপরিবহনের সংখ্যা কম লক্ষ্য করা গেছে।

আজ সকালে ঢাকার প্রায় প্রতিটি বাসেই যাত্রীদের দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। অনেককে দীর্ঘক্ষণ বাসের জন্য অপেক্ষা করতেও দেখা গেছে।

রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় সকাল সাতটা থেকে আটটা পর্যন্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নতুন সময়ে ব্যক্তিগত গাড়ি, স্টাফ বাস ও মোটরসাইকেলে অফিসে যাচ্ছেন।

সকালে সড়কে পর্যাপ্ত প্রাইভেট বাস ছিল না। প্রায় প্রতিটি বাসেই যাত্রীরা দাঁড়িয়েছিলেন। বাসে নারীদেরও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

অফিসগামী যাত্রীদের দীর্ঘক্ষণ বাসের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। নির্দিষ্ট গন্তব্যে বাস পেতেও সমস্যায় পড়তে হয়েছে অনেককে।

সরকারি কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী জানান, সময়মতো ঘুম থেকে উঠতে না পারাসহ নানা কারণে অফিস বাস পাননি। ফার্মগেটে এমনই এক সরকারি কর্মচারী বলেন, “আমি বাস মিস করেছি।” এখন কথা বলার মুড নেই।’

বাস না পাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ মানুষও। ষাট বছর বয়সী আমিনুল হক স্ত্রীকে নিয়ে ফার্মগেটে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তিনি বলেন, ‘বারডেম হাসপাতালে যাওয়ার জন্য প্রায় আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করছি। কিন্তু কোনো বাসে উঠতে পারছি না।

আজ থেকে সকাল আটটায় আদালত খোলে। ফলে আইন পেশাও সকালে বেরিয়ে পড়ে। মোঃ তুহিন নামের এক আইনজীবী বলেন, আজ মনে হচ্ছে বাস কম। ১৫ থেকে ২০ মিনিট দাঁড়িয়ে আছি। বাস নেই।

আব্দুর রউফ নামের এক বাস চালকের সহকারী বলেন, আজ যাত্রীর চাপ বেশি।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয় করতে সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-সরকারি অফিসের সময় এক ঘণ্টা কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ব্যাংক লেনদেনের সময়ও এগিয়ে আনা হয়েছে। এছাড়া সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দুদিনের সাপ্তাহিক ছুটি থাকবে। গত সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ঢাকায় বাস কম, যাত্রী দাঁড়িয়ে আছে

আপডেট সময় ০৫:৫৬:৩৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ অগাস্ট ২০২২

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ের লক্ষ্যে আজ বুধবার সকাল আটটা থেকে দেশের সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের অফিস শুরু হয়েছে। প্রথম দিন সকালে রাজধানী ঢাকায় গণপরিবহনের সংখ্যা কম লক্ষ্য করা গেছে।

আজ সকালে ঢাকার প্রায় প্রতিটি বাসেই যাত্রীদের দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। অনেককে দীর্ঘক্ষণ বাসের জন্য অপেক্ষা করতেও দেখা গেছে।

রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় সকাল সাতটা থেকে আটটা পর্যন্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নতুন সময়ে ব্যক্তিগত গাড়ি, স্টাফ বাস ও মোটরসাইকেলে অফিসে যাচ্ছেন।

সকালে সড়কে পর্যাপ্ত প্রাইভেট বাস ছিল না। প্রায় প্রতিটি বাসেই যাত্রীরা দাঁড়িয়েছিলেন। বাসে নারীদেরও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

অফিসগামী যাত্রীদের দীর্ঘক্ষণ বাসের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। নির্দিষ্ট গন্তব্যে বাস পেতেও সমস্যায় পড়তে হয়েছে অনেককে।

সরকারি কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী জানান, সময়মতো ঘুম থেকে উঠতে না পারাসহ নানা কারণে অফিস বাস পাননি। ফার্মগেটে এমনই এক সরকারি কর্মচারী বলেন, “আমি বাস মিস করেছি।” এখন কথা বলার মুড নেই।’

বাস না পাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ মানুষও। ষাট বছর বয়সী আমিনুল হক স্ত্রীকে নিয়ে ফার্মগেটে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তিনি বলেন, ‘বারডেম হাসপাতালে যাওয়ার জন্য প্রায় আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করছি। কিন্তু কোনো বাসে উঠতে পারছি না।

আজ থেকে সকাল আটটায় আদালত খোলে। ফলে আইন পেশাও সকালে বেরিয়ে পড়ে। মোঃ তুহিন নামের এক আইনজীবী বলেন, আজ মনে হচ্ছে বাস কম। ১৫ থেকে ২০ মিনিট দাঁড়িয়ে আছি। বাস নেই।

আব্দুর রউফ নামের এক বাস চালকের সহকারী বলেন, আজ যাত্রীর চাপ বেশি।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয় করতে সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-সরকারি অফিসের সময় এক ঘণ্টা কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ব্যাংক লেনদেনের সময়ও এগিয়ে আনা হয়েছে। এছাড়া সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দুদিনের সাপ্তাহিক ছুটি থাকবে। গত সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।