১১:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪
বিডি নিউজ

ডলার সংকটে প্রবাসী আয় আরও কম – বিডি নিউজ

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:০৪:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ জুন ২০২২
  • / ১৩০৫ বার পড়া হয়েছে

কেন্দ্রীয় ব্যাংক পাঁচটি ঋণ আটকে দিয়েছে

ডলারের মূল্য নির্ধারণের পর প্রবাসী আয়ে বড় ধরনের প্রভাব পড়েছে। প্রবাসীরা মে মাসে ৮৮ কোটি ডলার পাঠিয়েছেন, যা চলতি বছরের এপ্রিল ও গত বছরের মে মাসের তুলনায় কম। গত বছরের মে মাসে রাজস্ব আয় হয়েছিল ৭ কোটি ১৬ লাখ ডলার। ফলে প্রবাসী আয় প্রায় ১৩ শতাংশ কমেছে।

জানা গেছে, বিদায়ী মাসে কিছু ব্যাংক প্রবাসীদের কাছ থেকে ডলারে ৯৫ টাকা বেশি দরে কিনেছে। আর এই ডলার বেশি দামে বিক্রি করেছে দেশ। ডলারের মূল্যবৃদ্ধির কারণে ভোগ্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় চাপে রয়েছে মানুষ। এ অবস্থায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক গত রোববার (২৯ মে) ব্যাংকগুলোকে প্রবাসী আয়ে সর্বোচ্চ ৭৯ টাকা ২০ পয়সা হার নির্ধারণ করে। ফলে মাসের শেষ তিন দিনে বৈধ প্রবাসী আয় কমে যায়।

খোলা বাজারে ডলার এখন বিক্রি হচ্ছে ৯৭-৯৮ টাকায়। বিদেশে হুন্ডিতেও ৯২-৯৩ টাকা হারে প্রবাসী আয় সংগ্রহ করা হচ্ছে। আর ব্যাংকগুলো দিচ্ছে ৬৯ টাকা ২০ পয়সা। এতে প্রবাসীদের বৈধ আয় কমেছে।

ব্যাংকাররা বলছেন, দামের বড় পার্থক্যের কারণে প্রবাসী আয় বৈধ পথে না গিয়ে হুন্ডিতে যাচ্ছে। কারণ, হুন্ডিতে পাঠানো হলে প্রতি ডলারের দাম প্রায় ৯৫ টাকা। ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্ধারিত মূল্য পুনর্বিবেচনার সময় এসেছে।

এদিকে, মেমোরিয়াল ডেকে কেন্দ্র করে গত সোমবার যুক্তরাষ্ট্রে লেনদেন বন্ধ ছিল। আর রবিবার ছিল সাপ্তাহিক ছুটির দিন। ফলে দুই দিনে কোনো প্রবাসী আয় আসেনি। কারণ, প্রবাসী আয় বিভিন্ন ডলার হিসেবে নিউইয়র্কে দেশের ব্যাংকগুলোতে জমা থাকে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বিডি নিউজ

ডলার সংকটে প্রবাসী আয় আরও কম – বিডি নিউজ

আপডেট সময় ০৩:০৪:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ জুন ২০২২

ডলারের মূল্য নির্ধারণের পর প্রবাসী আয়ে বড় ধরনের প্রভাব পড়েছে। প্রবাসীরা মে মাসে ৮৮ কোটি ডলার পাঠিয়েছেন, যা চলতি বছরের এপ্রিল ও গত বছরের মে মাসের তুলনায় কম। গত বছরের মে মাসে রাজস্ব আয় হয়েছিল ৭ কোটি ১৬ লাখ ডলার। ফলে প্রবাসী আয় প্রায় ১৩ শতাংশ কমেছে।

জানা গেছে, বিদায়ী মাসে কিছু ব্যাংক প্রবাসীদের কাছ থেকে ডলারে ৯৫ টাকা বেশি দরে কিনেছে। আর এই ডলার বেশি দামে বিক্রি করেছে দেশ। ডলারের মূল্যবৃদ্ধির কারণে ভোগ্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় চাপে রয়েছে মানুষ। এ অবস্থায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক গত রোববার (২৯ মে) ব্যাংকগুলোকে প্রবাসী আয়ে সর্বোচ্চ ৭৯ টাকা ২০ পয়সা হার নির্ধারণ করে। ফলে মাসের শেষ তিন দিনে বৈধ প্রবাসী আয় কমে যায়।

খোলা বাজারে ডলার এখন বিক্রি হচ্ছে ৯৭-৯৮ টাকায়। বিদেশে হুন্ডিতেও ৯২-৯৩ টাকা হারে প্রবাসী আয় সংগ্রহ করা হচ্ছে। আর ব্যাংকগুলো দিচ্ছে ৬৯ টাকা ২০ পয়সা। এতে প্রবাসীদের বৈধ আয় কমেছে।

ব্যাংকাররা বলছেন, দামের বড় পার্থক্যের কারণে প্রবাসী আয় বৈধ পথে না গিয়ে হুন্ডিতে যাচ্ছে। কারণ, হুন্ডিতে পাঠানো হলে প্রতি ডলারের দাম প্রায় ৯৫ টাকা। ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্ধারিত মূল্য পুনর্বিবেচনার সময় এসেছে।

এদিকে, মেমোরিয়াল ডেকে কেন্দ্র করে গত সোমবার যুক্তরাষ্ট্রে লেনদেন বন্ধ ছিল। আর রবিবার ছিল সাপ্তাহিক ছুটির দিন। ফলে দুই দিনে কোনো প্রবাসী আয় আসেনি। কারণ, প্রবাসী আয় বিভিন্ন ডলার হিসেবে নিউইয়র্কে দেশের ব্যাংকগুলোতে জমা থাকে।