০৯:১৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

টাঙ্গাইলে নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার আগেই সাড়ে তিন কোটি টাকার সেতু দেওয়া হয়েছে

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৪:১৯:১৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ জুন ২০২২
  • / ১১৫২ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

টাঙ্গাইলে কাজ শেষ হওয়ার আগেই লৌহজং নদীর ওপর নির্মাণাধীন সেতুর মাঝখানে সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যয় করা হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সেতুটি দেওয়া হবে। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বলে জানান পৌরসভার প্রকৌশলী।

পৌর সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে টাঙ্গাইল পৌরসভা টাঙ্গাইল শহরের বারদোমা এলাকায় একটি সেতু নির্মাণ করছে। ৬ মিটার চওড়া ও ৩০ মিটার দীর্ঘ সেতুটির নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৬০ লাখ ১৬ হাজার টাকা। 2020 সালের 12 নভেম্বর দুই ঠিকাদার যৌথভাবে সেতুটির নির্মাণ কাজ শুরু করে। 11 মে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত মাত্র 55 শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। গত সপ্তাহে সেতুর ওপরের অংশ ঢালাই করা হয়েছে। গতরাতে সেতুর মাঝখানের সাটারিং সরিয়ে সাড়ে তিন ফুট দেওয়া যায়। ফলে নির্মাণাধীন সেতুটি ভেঙে নতুন করে নির্মাণ করতে হচ্ছে।

পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, ঘটনার তদন্ত কমিটি গঠন করে সেতুর কারণ অনুসন্ধানের চেষ্টা করা হবে।

বেড়াডোমা এলাকার বাসিন্দা খোরশেদ হোসেন বলেন, পৌরসভার প্রকৌশলী ও ঠিকাদারদের অবহেলায় সেতুটি পরিত্যক্ত হয়েছে। আমাদের আরও কয়েক বছর ভুগতে হবে। ‘আরেক বাসিন্দা হাফিজুর রহমান বলেন, ‘এখানে যে বেইলি ব্রিজটি ছিল তা দুবার ভেঙ্গে গেছে এবং আমরা বছরের পর বছর ধরে দুর্ভোগ পোহাচ্ছি। এই সেতু নির্মাণে ধীরগতির কারণে ভোগান্তি অব্যাহত রয়েছে। ‘

আবুল কালাম আজাদ, নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. কিন্তু পৌরসভার ঠিকাদারের লোকজন কোনো কথাই শোনেনি। সেতুটি নির্মিত হওয়ায় লাখ লাখ মানুষ বছরের পর বছর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।

জানতে চাইলে পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী শিব্বির আহমেদ আজমী বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রকল্প পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানানো হয়েছে। এ ক্ষেত্রে তদন্ত কমিটি সেতুর পেছনের কারণ খুঁজে বের করার চেষ্টা করবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

টাঙ্গাইলে নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার আগেই সাড়ে তিন কোটি টাকার সেতু দেওয়া হয়েছে

আপডেট সময় ০৪:১৯:১৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ জুন ২০২২

টাঙ্গাইলে কাজ শেষ হওয়ার আগেই লৌহজং নদীর ওপর নির্মাণাধীন সেতুর মাঝখানে সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যয় করা হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সেতুটি দেওয়া হবে। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বলে জানান পৌরসভার প্রকৌশলী।

পৌর সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে টাঙ্গাইল পৌরসভা টাঙ্গাইল শহরের বারদোমা এলাকায় একটি সেতু নির্মাণ করছে। ৬ মিটার চওড়া ও ৩০ মিটার দীর্ঘ সেতুটির নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৬০ লাখ ১৬ হাজার টাকা। 2020 সালের 12 নভেম্বর দুই ঠিকাদার যৌথভাবে সেতুটির নির্মাণ কাজ শুরু করে। 11 মে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত মাত্র 55 শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। গত সপ্তাহে সেতুর ওপরের অংশ ঢালাই করা হয়েছে। গতরাতে সেতুর মাঝখানের সাটারিং সরিয়ে সাড়ে তিন ফুট দেওয়া যায়। ফলে নির্মাণাধীন সেতুটি ভেঙে নতুন করে নির্মাণ করতে হচ্ছে।

পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, ঘটনার তদন্ত কমিটি গঠন করে সেতুর কারণ অনুসন্ধানের চেষ্টা করা হবে।

বেড়াডোমা এলাকার বাসিন্দা খোরশেদ হোসেন বলেন, পৌরসভার প্রকৌশলী ও ঠিকাদারদের অবহেলায় সেতুটি পরিত্যক্ত হয়েছে। আমাদের আরও কয়েক বছর ভুগতে হবে। ‘আরেক বাসিন্দা হাফিজুর রহমান বলেন, ‘এখানে যে বেইলি ব্রিজটি ছিল তা দুবার ভেঙ্গে গেছে এবং আমরা বছরের পর বছর ধরে দুর্ভোগ পোহাচ্ছি। এই সেতু নির্মাণে ধীরগতির কারণে ভোগান্তি অব্যাহত রয়েছে। ‘

আবুল কালাম আজাদ, নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. কিন্তু পৌরসভার ঠিকাদারের লোকজন কোনো কথাই শোনেনি। সেতুটি নির্মিত হওয়ায় লাখ লাখ মানুষ বছরের পর বছর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।

জানতে চাইলে পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী শিব্বির আহমেদ আজমী বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রকল্প পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানানো হয়েছে। এ ক্ষেত্রে তদন্ত কমিটি সেতুর পেছনের কারণ খুঁজে বের করার চেষ্টা করবে।