১০:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪

জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে সব জিনিসেরই দাম বাড়ে: অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:৪১:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২
  • / ৭৮৮ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে সব জিনিসেরই দাম বেড়ে যায় বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, তেলের দাম বাড়লে গরিব মানুষের ওপর স্বাভাবিকভাবেই প্রভাব পড়ে। তবে সরকার বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। দুঃসময় কেটে যাবে।

সচিবালয়ে আজ বুধবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন। জ্বালানির দাম কেন বাড়ল, তা জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যে জানিয়েছে এবং এর বাইরে কিছু বলবেন না বলেও জানান অর্থমন্ত্রী। বলেন, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে বসবেন।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে মানুষের ওপর এর প্রভাব মূল্যায়ন করা হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘অবশ্যই করা হবে।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, মার্কিন ডলার এখন বৈশ্বিক সমস্যা। বিশ্বের এমন কোনো দেশ নেই, যেখানে ডলারের দাম বাড়েনি। সবাই এ কারণে ভুগছেন। যাঁরা যুদ্ধ করছেন, তাঁরাও ভুগছেন। যাঁরা যুদ্ধ বাধাচ্ছেন, তাঁরাও এর বাইরে নন।

এদিকে ডলার ব্যবসায় অস্বাভাবিক মুনাফা করায় দেশি-বিদেশি ছয় ব্যাংকের ট্রেজারিপ্রধানদের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে গত বৃহস্পতিবার।

এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এখানে যেভাবে সাহায্য করা দরকার, তা যদি না করা হয়, তাহলে তো সমস্যা। আপনার ব্যাংকে আপনি কত টাকা রাখতে পারেন, ডলার কত রাখবেন, নগদ টাকা কত রাখবেন, সেটির বিষয় আছে। এর বাইরে যদি রাখেন, তাহলে মনে হবে অন্য কিছু করছেন। আমি বিষয়টি সঠিকভাবে জানি না।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে রপ্তানির তুলনায় প্রবাসী আয় (রেমিট্যান্স) কমে গেছে। একই সময় আমদানিও বেড়ে গেছে। এতে দেশে চরম ডলার–সংকট দেখা দিয়েছে। তবে বৈদেশিক মুদ্রাবাজার স্থিতিশীল রাখা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে সব জিনিসেরই দাম বাড়ে: অর্থমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৩:৪১:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২

জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে সব জিনিসেরই দাম বেড়ে যায় বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, তেলের দাম বাড়লে গরিব মানুষের ওপর স্বাভাবিকভাবেই প্রভাব পড়ে। তবে সরকার বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। দুঃসময় কেটে যাবে।

সচিবালয়ে আজ বুধবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন। জ্বালানির দাম কেন বাড়ল, তা জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যে জানিয়েছে এবং এর বাইরে কিছু বলবেন না বলেও জানান অর্থমন্ত্রী। বলেন, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে বসবেন।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে মানুষের ওপর এর প্রভাব মূল্যায়ন করা হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘অবশ্যই করা হবে।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, মার্কিন ডলার এখন বৈশ্বিক সমস্যা। বিশ্বের এমন কোনো দেশ নেই, যেখানে ডলারের দাম বাড়েনি। সবাই এ কারণে ভুগছেন। যাঁরা যুদ্ধ করছেন, তাঁরাও ভুগছেন। যাঁরা যুদ্ধ বাধাচ্ছেন, তাঁরাও এর বাইরে নন।

এদিকে ডলার ব্যবসায় অস্বাভাবিক মুনাফা করায় দেশি-বিদেশি ছয় ব্যাংকের ট্রেজারিপ্রধানদের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে গত বৃহস্পতিবার।

এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এখানে যেভাবে সাহায্য করা দরকার, তা যদি না করা হয়, তাহলে তো সমস্যা। আপনার ব্যাংকে আপনি কত টাকা রাখতে পারেন, ডলার কত রাখবেন, নগদ টাকা কত রাখবেন, সেটির বিষয় আছে। এর বাইরে যদি রাখেন, তাহলে মনে হবে অন্য কিছু করছেন। আমি বিষয়টি সঠিকভাবে জানি না।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে রপ্তানির তুলনায় প্রবাসী আয় (রেমিট্যান্স) কমে গেছে। একই সময় আমদানিও বেড়ে গেছে। এতে দেশে চরম ডলার–সংকট দেখা দিয়েছে। তবে বৈদেশিক মুদ্রাবাজার স্থিতিশীল রাখা হবে।