১১:৪৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

জাইকার কাছ থেকে বাজেট সহায়তা আশা করছেন অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:৫৪:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ জুলাই ২০২২
  • / ৬৮০ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

জাপানের উন্নয়ন সংস্থা জাইকা ভবিষ্যতে বাংলাদেশে অর্থায়ন বাড়াবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, “আমি বিশ্বাস করি, ভবিষ্যতের বৈশ্বিক অনিশ্চয়তার কথা বিবেচনা করে জাইকা প্রয়োজনীয় বাজেট সহায়তাসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য অর্থায়ন আরও বাড়াবে।”

সোমবার জাইকার প্রেসিডেন্ট আকিহিকো তানাকার সঙ্গে বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন। সচিবালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারীর শুরুতে জাপান বাংলাদেশকে যে বাজেট সহায়তা দিয়েছে তা বাংলাদেশ ও জাপান উভয় দেশের ইতিহাসে প্রথম। এটি আমাদের কোভিড-১৯ মহামারীর নেতিবাচক প্রভাব প্রশমিত করতে এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সৃষ্ট সংকট মোকাবেলায় সহায়তা করেছে। জাপান বাংলাদেশের একক বৃহত্তম দ্বিপাক্ষিক উন্নয়ন সহযোগী।

জাইকার প্রেসিডেন্ট আকিহিকো তানাকা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেন, অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর চেয়ে অনেক এগিয়ে। সহযোগিতার সফল বাস্তবায়নের কারণে বাংলাদেশ বর্তমানে জাপানের সরকারের উন্নয়ন সহযোগিতার তালিকার অন্যতম দেশ। বিভিন্ন সামাজিক সূচকে অগ্রগতি অর্জন করে বাংলাদেশ উন্নয়নের নতুন স্তরে পৌঁছেছে। তিনি বলেন, এই সফরে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির চিত্র নিজ চোখে দেখে তিনি তা উপলব্ধি করেছেন।

বৈঠকে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (আইআরডি) সচিব শরিফা খান, জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি, জাইকার আবাসিক প্রতিনিধি ইয়ো হায়াকাওয়া এবং জাইকা ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

জাইকার কাছ থেকে বাজেট সহায়তা আশা করছেন অর্থমন্ত্রী

আপডেট সময় ০৩:৫৪:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ জুলাই ২০২২

জাপানের উন্নয়ন সংস্থা জাইকা ভবিষ্যতে বাংলাদেশে অর্থায়ন বাড়াবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, “আমি বিশ্বাস করি, ভবিষ্যতের বৈশ্বিক অনিশ্চয়তার কথা বিবেচনা করে জাইকা প্রয়োজনীয় বাজেট সহায়তাসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য অর্থায়ন আরও বাড়াবে।”

সোমবার জাইকার প্রেসিডেন্ট আকিহিকো তানাকার সঙ্গে বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন। সচিবালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারীর শুরুতে জাপান বাংলাদেশকে যে বাজেট সহায়তা দিয়েছে তা বাংলাদেশ ও জাপান উভয় দেশের ইতিহাসে প্রথম। এটি আমাদের কোভিড-১৯ মহামারীর নেতিবাচক প্রভাব প্রশমিত করতে এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সৃষ্ট সংকট মোকাবেলায় সহায়তা করেছে। জাপান বাংলাদেশের একক বৃহত্তম দ্বিপাক্ষিক উন্নয়ন সহযোগী।

জাইকার প্রেসিডেন্ট আকিহিকো তানাকা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেন, অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর চেয়ে অনেক এগিয়ে। সহযোগিতার সফল বাস্তবায়নের কারণে বাংলাদেশ বর্তমানে জাপানের সরকারের উন্নয়ন সহযোগিতার তালিকার অন্যতম দেশ। বিভিন্ন সামাজিক সূচকে অগ্রগতি অর্জন করে বাংলাদেশ উন্নয়নের নতুন স্তরে পৌঁছেছে। তিনি বলেন, এই সফরে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির চিত্র নিজ চোখে দেখে তিনি তা উপলব্ধি করেছেন।

বৈঠকে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (আইআরডি) সচিব শরিফা খান, জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি, জাইকার আবাসিক প্রতিনিধি ইয়ো হায়াকাওয়া এবং জাইকা ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।