০২:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪

ক্রিকেট দলের ফুটবলকোচ মাশরাফি

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:০৯:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ জুন ২০২২
  • / ৯৭৫ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

রাসেল ডমিঙ্গো কি নিজেকে হোসে মরিনহো বলে মনে করেন? বা অ্যালান ডোনাল্ড যা ভাবছেন, তিনি আসলে গার্দিওলা! তারা ভাবুক আর না ভাবুক, আজকের ক্রিকেট কোচদের সম্পর্কে মাশরাফি বিন মুর্তজার ধারণা—তারা নিজেদের ফুটবল কোচ হিসেবেই ভাবছেন।

মাশরাফি কারো নাম বলেননি। তবে সাকিব আল হাসানের টেস্ট দলের নেতৃত্ব নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক আজ প্রথম আলোকে বলেন, ‘ক্রিকেটের এই যুগে কেউ কোচ হতে চান মরিনহো, কেউ হতে চান গার্দিওলা। তারা নিজেদের ফুটবল মনে করেন। কোচ।’

আধুনিক ক্রিকেট কোচদের এমন দর্শন মেনে নিতে পারছেন না মাশরাফি। তার চোখে এ ধারণা ভুল, ‘ফুটবল কোচ নির্ভর খেলা কিন্তু ক্রিকেট পুরোপুরি অধিনায়ক নির্ভর খেলা। দল নির্বাচন ও একাদশ গঠনে যদি অধিনায়ককে প্রাধান্য না দেওয়া হয়, তাহলে তার কাছে জবাবদিহি দাবি করা ঠিক হবে না। ‘

সাকিব সম্পর্কে বলতে গিয়ে মাশরাফি বলেন, কোচদের আকস্মিক অবতারণা বাংলাদেশ দলের সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের প্রসঙ্গে। ‘আশা করি, সাকিবের ক্ষেত্রে সেটা হবে না, যা মুমিনুলের ক্ষেত্রে হয়েছে। অবশ্য কারো এমন ইচ্ছা থাকলেও সাকিবের ক্ষেত্রে বলার সাহস হয়তো তাদের নেই,” বলেন ক্রিকেটার থেকে বর্তমানে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি। 2009 সালে তিনি ইনজুরিতে পড়েন এবং টেস্ট ক্রিকেট খেলেননি। যদিও তিনি বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন। মাশরাফি তার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা থেকে জানেন একজন অধিনায়কের জন্য কাজের স্বাধীনতা কতটা গুরুত্বপূর্ণ। মাশরাফি বলেন, “একজন অধিনায়ক যখন মাঠে থাকেন, তখন তিনি ভালো করেই জানেন কোন বোলার বা ব্যাটসম্যানের অধীনে খেলতে হবে। অধিনায়কের ওপর যদি সেই আস্থা না থাকে, তাহলে তাকে অধিনায়কত্ব দেওয়া ঠিক হবে না।’ এগুলো মেনে চললে ব্যর্থতার সম্ভাবনা বাড়বে। আপনাকে সেই যুক্তির জন্যও যেতে হবে যা বিশ্বজুড়ে চলে। ক্রিকেট একটি অধিনায়ক নির্ভর খেলা। আপনি এটি খেলতে যাচ্ছেন কোচ-নির্ভর, আপনি ক্রিকেট বোর্ড খেলতে যাচ্ছেন। -ভিত্তিক।

মুমিনুল অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ইচ্ছা প্রকাশ করার পর, আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের আগে সাকিবের কাছে টেস্ট দলকে নেতৃত্ব দেয় বিসিবি। কিন্তু কে নিয়মিত টেস্ট খেলবেন, সেই আলোচনার শেষ নেই; টেস্ট অধিনায়কত্ব তার কাঁধে তুলে আলোচনার নতুন শাখা খুলেছে। তবে মাশরাফি আলোচক হতে রাজি হননি।

অধিনায়ক হওয়ার পরও সাকিব বিশ্রাম নিয়ে টেস্ট খেলবেন কিনা তা সম্পূর্ণ নির্ভর করছে সাকিব ও বিসিবির মধ্যে বোঝাপড়ার ওপর। মিডিয়া কীভাবে বিষয়টি পরিচালনা করে তাও গুরুত্বপূর্ণ। যে কোনও ক্ষেত্রে, কোথাও কোনও যোগাযোগ বিঘ্নিত হওয়া উচিত নয়। এর আগে মাশরাফির কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল অধিনায়ক সাকিবের কোথায় উন্নতি করতে হবে? না, সে এখন সেরকম জায়গা খুঁজে পাচ্ছে না। সে তার নিজের উপায়ে উন্নতি করে। আজ যা ভুল তা আগামীকাল ঠিক করা হবে। মূল বিষয় হল সাকিব অধিনায়ক হিসেবে সঠিক ব্যক্তি কিনা? আমি সঠিক ব্যক্তি মনে করি. আর কোথায় উন্নতি করা যায় সেটা নির্ভর করে। ‘

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ক্রিকেট দলের ফুটবলকোচ মাশরাফি

আপডেট সময় ০৬:০৯:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ জুন ২০২২

রাসেল ডমিঙ্গো কি নিজেকে হোসে মরিনহো বলে মনে করেন? বা অ্যালান ডোনাল্ড যা ভাবছেন, তিনি আসলে গার্দিওলা! তারা ভাবুক আর না ভাবুক, আজকের ক্রিকেট কোচদের সম্পর্কে মাশরাফি বিন মুর্তজার ধারণা—তারা নিজেদের ফুটবল কোচ হিসেবেই ভাবছেন।

মাশরাফি কারো নাম বলেননি। তবে সাকিব আল হাসানের টেস্ট দলের নেতৃত্ব নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক আজ প্রথম আলোকে বলেন, ‘ক্রিকেটের এই যুগে কেউ কোচ হতে চান মরিনহো, কেউ হতে চান গার্দিওলা। তারা নিজেদের ফুটবল মনে করেন। কোচ।’

আধুনিক ক্রিকেট কোচদের এমন দর্শন মেনে নিতে পারছেন না মাশরাফি। তার চোখে এ ধারণা ভুল, ‘ফুটবল কোচ নির্ভর খেলা কিন্তু ক্রিকেট পুরোপুরি অধিনায়ক নির্ভর খেলা। দল নির্বাচন ও একাদশ গঠনে যদি অধিনায়ককে প্রাধান্য না দেওয়া হয়, তাহলে তার কাছে জবাবদিহি দাবি করা ঠিক হবে না। ‘

সাকিব সম্পর্কে বলতে গিয়ে মাশরাফি বলেন, কোচদের আকস্মিক অবতারণা বাংলাদেশ দলের সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের প্রসঙ্গে। ‘আশা করি, সাকিবের ক্ষেত্রে সেটা হবে না, যা মুমিনুলের ক্ষেত্রে হয়েছে। অবশ্য কারো এমন ইচ্ছা থাকলেও সাকিবের ক্ষেত্রে বলার সাহস হয়তো তাদের নেই,” বলেন ক্রিকেটার থেকে বর্তমানে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি। 2009 সালে তিনি ইনজুরিতে পড়েন এবং টেস্ট ক্রিকেট খেলেননি। যদিও তিনি বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন। মাশরাফি তার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা থেকে জানেন একজন অধিনায়কের জন্য কাজের স্বাধীনতা কতটা গুরুত্বপূর্ণ। মাশরাফি বলেন, “একজন অধিনায়ক যখন মাঠে থাকেন, তখন তিনি ভালো করেই জানেন কোন বোলার বা ব্যাটসম্যানের অধীনে খেলতে হবে। অধিনায়কের ওপর যদি সেই আস্থা না থাকে, তাহলে তাকে অধিনায়কত্ব দেওয়া ঠিক হবে না।’ এগুলো মেনে চললে ব্যর্থতার সম্ভাবনা বাড়বে। আপনাকে সেই যুক্তির জন্যও যেতে হবে যা বিশ্বজুড়ে চলে। ক্রিকেট একটি অধিনায়ক নির্ভর খেলা। আপনি এটি খেলতে যাচ্ছেন কোচ-নির্ভর, আপনি ক্রিকেট বোর্ড খেলতে যাচ্ছেন। -ভিত্তিক।

মুমিনুল অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ইচ্ছা প্রকাশ করার পর, আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের আগে সাকিবের কাছে টেস্ট দলকে নেতৃত্ব দেয় বিসিবি। কিন্তু কে নিয়মিত টেস্ট খেলবেন, সেই আলোচনার শেষ নেই; টেস্ট অধিনায়কত্ব তার কাঁধে তুলে আলোচনার নতুন শাখা খুলেছে। তবে মাশরাফি আলোচক হতে রাজি হননি।

অধিনায়ক হওয়ার পরও সাকিব বিশ্রাম নিয়ে টেস্ট খেলবেন কিনা তা সম্পূর্ণ নির্ভর করছে সাকিব ও বিসিবির মধ্যে বোঝাপড়ার ওপর। মিডিয়া কীভাবে বিষয়টি পরিচালনা করে তাও গুরুত্বপূর্ণ। যে কোনও ক্ষেত্রে, কোথাও কোনও যোগাযোগ বিঘ্নিত হওয়া উচিত নয়। এর আগে মাশরাফির কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল অধিনায়ক সাকিবের কোথায় উন্নতি করতে হবে? না, সে এখন সেরকম জায়গা খুঁজে পাচ্ছে না। সে তার নিজের উপায়ে উন্নতি করে। আজ যা ভুল তা আগামীকাল ঠিক করা হবে। মূল বিষয় হল সাকিব অধিনায়ক হিসেবে সঠিক ব্যক্তি কিনা? আমি সঠিক ব্যক্তি মনে করি. আর কোথায় উন্নতি করা যায় সেটা নির্ভর করে। ‘