১০:১৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

উচ্চ শিক্ষিত মহিলাদের কাজ করতে বাধ্য করা যাবে না: বোম্বে হাইকোর্ট

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:৩৫:১৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ জুন ২০২২
  • / ১১৪৫ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

একজন নারী উচ্চ শিক্ষিত হলেও তাকে চাকরি করতে বাধ্য করা যাবে না। সম্প্রতি একটি মামলার শুনানিতে বোম্বে হাইকোর্টের এমনই পর্যবেক্ষণ। পুনের একটি পারিবারিক আদালত এক ব্যক্তিকে তার স্ত্রীকে প্রতি মাসে 5,000 টাকা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। তাকে তার মেয়ের শিক্ষার জন্য আরও 7,000 টাকা দিতে বলা হয়েছিল। লোকটি তখন দাবি করেছিল যে তার স্ত্রী উচ্চ শিক্ষিত এবং তাই কাজ করে জীবিকা অর্জন করতে পারে। কিন্তু পুনের আদালত তার আবেদন প্রত্যাখ্যান করে এবং তার স্ত্রীকে ভরণপোষণের নির্দেশ দেয়। ওই ব্যক্তি ওই আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে বোম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন।

গত শুক্রবার বিচারপতি ভারতী ডাঙের একক বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হয়। বেঞ্চের মতে, কাজ করবেন বা বাড়িতে থাকবেন কিনা তা সিদ্ধান্ত নেওয়া মহিলার। উচ্চ শিক্ষিত বা ডিগ্রি থাকলেও তাকে চাকরির জন্য কেউ চাপ দিতে পারবে না।

বিচারপতি ডান্দ্রে বলেন, “আমাদের সমাজ এখনও বিশ্বে নারীদের আর্থিক সহায়তার বিষয়টি মেনে নিতে পারে না। একজন মহিলা কাজ করবেন কি করবেন না তা সম্পূর্ণরূপে তার নিজের ব্যবসা। শিক্ষিত হওয়ার মানে এই নয় যে সে ঘরে থাকতে পারবে না। “

এ প্রসঙ্গে বিচারক আরও বলেন, আমি আজ এই আদালতের বিচারক। ধরুন, পরের দিন থেকে আমি বাড়িতে থাকলে আপনি কি বলবেন যে আমি উচ্চ শিক্ষিত, আমি একজন বিচারক, তাই ঘরে বসে থাকা। ভাল না? “

সূত্র: আনন্দবাজার

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

উচ্চ শিক্ষিত মহিলাদের কাজ করতে বাধ্য করা যাবে না: বোম্বে হাইকোর্ট

আপডেট সময় ০৫:৩৫:১৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ জুন ২০২২

একজন নারী উচ্চ শিক্ষিত হলেও তাকে চাকরি করতে বাধ্য করা যাবে না। সম্প্রতি একটি মামলার শুনানিতে বোম্বে হাইকোর্টের এমনই পর্যবেক্ষণ। পুনের একটি পারিবারিক আদালত এক ব্যক্তিকে তার স্ত্রীকে প্রতি মাসে 5,000 টাকা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। তাকে তার মেয়ের শিক্ষার জন্য আরও 7,000 টাকা দিতে বলা হয়েছিল। লোকটি তখন দাবি করেছিল যে তার স্ত্রী উচ্চ শিক্ষিত এবং তাই কাজ করে জীবিকা অর্জন করতে পারে। কিন্তু পুনের আদালত তার আবেদন প্রত্যাখ্যান করে এবং তার স্ত্রীকে ভরণপোষণের নির্দেশ দেয়। ওই ব্যক্তি ওই আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে বোম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন।

গত শুক্রবার বিচারপতি ভারতী ডাঙের একক বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হয়। বেঞ্চের মতে, কাজ করবেন বা বাড়িতে থাকবেন কিনা তা সিদ্ধান্ত নেওয়া মহিলার। উচ্চ শিক্ষিত বা ডিগ্রি থাকলেও তাকে চাকরির জন্য কেউ চাপ দিতে পারবে না।

বিচারপতি ডান্দ্রে বলেন, “আমাদের সমাজ এখনও বিশ্বে নারীদের আর্থিক সহায়তার বিষয়টি মেনে নিতে পারে না। একজন মহিলা কাজ করবেন কি করবেন না তা সম্পূর্ণরূপে তার নিজের ব্যবসা। শিক্ষিত হওয়ার মানে এই নয় যে সে ঘরে থাকতে পারবে না। “

এ প্রসঙ্গে বিচারক আরও বলেন, আমি আজ এই আদালতের বিচারক। ধরুন, পরের দিন থেকে আমি বাড়িতে থাকলে আপনি কি বলবেন যে আমি উচ্চ শিক্ষিত, আমি একজন বিচারক, তাই ঘরে বসে থাকা। ভাল না? “

সূত্র: আনন্দবাজার