০৭:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

ইসি কি এই ভাষায় চিঠি লিখতে পারে?

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১০:৫৭:৩২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ জুন ২০২২
  • / ৮১৪ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকে এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দিয়ে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া চিঠির ভাষা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

বাহার বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন (ইসি) যে ভাষায় আমাকে চিঠি দিয়েছে তা খুবই নজরকাড়া বলে মনে হচ্ছে। এলাকা খালি করার নির্দেশ দেওয়া ইসির এখতিয়ারের মধ্যে নেই।

বুধবার সকালে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজিয়েট স্কুলে ভোট দেওয়ার পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

বাহাউদ্দিন অভিযোগ করেন, ইসির চিঠির ভাষা সঠিক নয়। আইনটি সংসদ সদস্যরা নয়, নির্বাচন কমিশন করেছে। তিনি আরও বলেন, এই আইন সংশোধন করতে হবে।

বাহাউদ্দিন বলেন, নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচনী আইন মানতে হবে। আমি খুব দুঃখিত. একজন নির্বাচন কমিশনার বলেন, আমি বিধায়ক হয়ে আইন ভঙ্গ করেছি। নির্বাচনে আমাকে কোথাও দেখেছেন? ‘

 ইসির দেওয়া চিঠিটি এখতিয়ারের বাইরে এবং মৌখিকভাবেও সঠিক নয় উল্লেখ করে কুমিল্লার সংসদ সদস্য বলেন, জাতীয় পরিষদের একজন সদস্য এভাবে নির্দেশনা শব্দটি ব্যবহার করতে পারেন না। চিঠিটা অসমাপ্ত ছিল। আইনের পূর্ণাঙ্গ ব্যাখ্যা ছিল না। তিনি সংসদে আইনটি নিয়ে কথা বলবেন এবং সংশোধনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তাকে দেওয়া চিঠিতে কুমিল্লার মানুষ ক্ষুব্ধ দাবি করে বাহার বলেন, তাকে দেওয়া চিঠিতে কুমিল্লার মানুষ ক্ষুব্ধ। এই চিঠি না থাকলে তাদের এত মন খারাপ হতো না। আমাকে দেওয়া চিঠিটি এখতিয়ারের বাইরে। আমরা সেই আইন সংশোধন করব।

তিনি বলেন, আমি সরকারের অংশ নই। আমি সংসদ সদস্য। আমি সরকারের কেউ নই। সেই আইনে আমাকে ঘরে রাখা হয়েছে। আমি এই আইন সংশোধন করব।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার প্রশাসনকে বলেছেন, কোনো উৎসাহী কর্মকর্তা যেন পরিবেশ নষ্ট না করেন। উৎসবমুখর পরিবেশে পুরো কুমিল্লা। এখন যদি দেখি 10-12টা ছেলে দাঁড়িয়ে আছে। তাদের হয়রানি করা উচিত নয়।

ভোটের পরিবেশ প্রসঙ্গে বাহাউদ্দিন বাহার বলেন, সকালে একটু বৃষ্টি হয়েছে। উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটাররা ভোট দিয়েছেন। কোথাও কোনো বিশৃঙ্খলা নেই। সমস্যা নেই.

তিনি বলেন, অনেকেই ভোটার আইডি কার্ড নিয়েছেন বলে অভিযোগ পেয়েছি। কিন্তু সেই চিঠি নেওয়া হয়নি, যে কারণে তাদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি। ভোটের জন্য চিঠির প্রয়োজন নেই। আইডি সহ যে কেউ ভোট দিতে পারবেন। আইডিই ভোট দেওয়ার জন্য এনাফ (যথেষ্ট)। ভোটারদের সহযোগিতার জন্য প্রার্থীদের ভোটের চিঠি দেওয়া হয়েছে।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, যারা হলুদ সাংবাদিকতা করেন তারা আমার বিরুদ্ধে সংবাদ করেছেন।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা কেউ নির্বাচন কমিশনকে জিজ্ঞেস করেননি যে, ওই ভাষায় লিখতে হবে কি কর্তৃপক্ষ।

কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বাহার আরও বলেন, যাদের সঙ্গে নির্বাচন করেছি তাদের জামিন পেতে অসুবিধা হচ্ছে।

.

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ইসি কি এই ভাষায় চিঠি লিখতে পারে?

আপডেট সময় ১০:৫৭:৩২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ জুন ২০২২

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকে এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দিয়ে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া চিঠির ভাষা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

বাহার বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন (ইসি) যে ভাষায় আমাকে চিঠি দিয়েছে তা খুবই নজরকাড়া বলে মনে হচ্ছে। এলাকা খালি করার নির্দেশ দেওয়া ইসির এখতিয়ারের মধ্যে নেই।

বুধবার সকালে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজিয়েট স্কুলে ভোট দেওয়ার পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

বাহাউদ্দিন অভিযোগ করেন, ইসির চিঠির ভাষা সঠিক নয়। আইনটি সংসদ সদস্যরা নয়, নির্বাচন কমিশন করেছে। তিনি আরও বলেন, এই আইন সংশোধন করতে হবে।

বাহাউদ্দিন বলেন, নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচনী আইন মানতে হবে। আমি খুব দুঃখিত. একজন নির্বাচন কমিশনার বলেন, আমি বিধায়ক হয়ে আইন ভঙ্গ করেছি। নির্বাচনে আমাকে কোথাও দেখেছেন? ‘

 ইসির দেওয়া চিঠিটি এখতিয়ারের বাইরে এবং মৌখিকভাবেও সঠিক নয় উল্লেখ করে কুমিল্লার সংসদ সদস্য বলেন, জাতীয় পরিষদের একজন সদস্য এভাবে নির্দেশনা শব্দটি ব্যবহার করতে পারেন না। চিঠিটা অসমাপ্ত ছিল। আইনের পূর্ণাঙ্গ ব্যাখ্যা ছিল না। তিনি সংসদে আইনটি নিয়ে কথা বলবেন এবং সংশোধনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তাকে দেওয়া চিঠিতে কুমিল্লার মানুষ ক্ষুব্ধ দাবি করে বাহার বলেন, তাকে দেওয়া চিঠিতে কুমিল্লার মানুষ ক্ষুব্ধ। এই চিঠি না থাকলে তাদের এত মন খারাপ হতো না। আমাকে দেওয়া চিঠিটি এখতিয়ারের বাইরে। আমরা সেই আইন সংশোধন করব।

তিনি বলেন, আমি সরকারের অংশ নই। আমি সংসদ সদস্য। আমি সরকারের কেউ নই। সেই আইনে আমাকে ঘরে রাখা হয়েছে। আমি এই আইন সংশোধন করব।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার প্রশাসনকে বলেছেন, কোনো উৎসাহী কর্মকর্তা যেন পরিবেশ নষ্ট না করেন। উৎসবমুখর পরিবেশে পুরো কুমিল্লা। এখন যদি দেখি 10-12টা ছেলে দাঁড়িয়ে আছে। তাদের হয়রানি করা উচিত নয়।

ভোটের পরিবেশ প্রসঙ্গে বাহাউদ্দিন বাহার বলেন, সকালে একটু বৃষ্টি হয়েছে। উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটাররা ভোট দিয়েছেন। কোথাও কোনো বিশৃঙ্খলা নেই। সমস্যা নেই.

তিনি বলেন, অনেকেই ভোটার আইডি কার্ড নিয়েছেন বলে অভিযোগ পেয়েছি। কিন্তু সেই চিঠি নেওয়া হয়নি, যে কারণে তাদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি। ভোটের জন্য চিঠির প্রয়োজন নেই। আইডি সহ যে কেউ ভোট দিতে পারবেন। আইডিই ভোট দেওয়ার জন্য এনাফ (যথেষ্ট)। ভোটারদের সহযোগিতার জন্য প্রার্থীদের ভোটের চিঠি দেওয়া হয়েছে।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, যারা হলুদ সাংবাদিকতা করেন তারা আমার বিরুদ্ধে সংবাদ করেছেন।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা কেউ নির্বাচন কমিশনকে জিজ্ঞেস করেননি যে, ওই ভাষায় লিখতে হবে কি কর্তৃপক্ষ।

কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বাহার আরও বলেন, যাদের সঙ্গে নির্বাচন করেছি তাদের জামিন পেতে অসুবিধা হচ্ছে।

.