০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

ইউরোপে আগুন জ্বলছে, মৃত্যু বাড়ছে

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৪:০৭:৩২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ জুলাই ২০২২
  • / ৭৩০ বার পড়া হয়েছে

bdopennews

উচ্চ তাপমাত্রা ও তীব্র খরায় এক সপ্তাহ ধরে পুড়ছে ইউরোপের একটি বড় অংশ। যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, পর্তুগাল, স্পেনসহ বিভিন্ন দেশে দ্রুত তাপমাত্রা বাড়ছে। যুক্তরাজ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার জন্য রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। পর্তুগাল-স্পেন-ফ্রান্সের অনেক জায়গায় আগুন লেগেছে। স্পেনসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে উচ্চ তাপমাত্রার কারণে মৃত্যুর খবরও পাওয়া গেছে।

যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে সোমবার ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হবে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে। দেশটির প্রধান আবহাওয়াবিদ পল ডেভিস বলেছেন, মঙ্গলবারের মধ্যে তাপমাত্রা ৪০ বা ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছতে পারে। এটি হতে পারে যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড। দেশে আগের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল 2019 সালে কেমব্রিজে, 38.7 ডিগ্রি সেলসিয়াস।

যুক্তরাজ্যের আবহাওয়া অফিস তাপপ্রবাহের জন্য ইয়র্ক এবং ম্যানচেস্টার থেকে লন্ডন এবং দক্ষিণ-পূর্ব ইংল্যান্ডের বড় অংশের জন্য একটি ‘লাল সতর্কতা’ জারি করেছে। দেশের বাকি অংশেও উচ্চ তাপমাত্রার পূর্বাভাস রয়েছে। ইংল্যান্ডের বাকি অংশ, পুরো ওয়েলস এবং স্কটল্যান্ডের কিছু অংশে হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। অন্যদিকে লন্ডনের তাপমাত্রা আগামীকাল বুধবার ঠান্ডা হতে পারে।

প্রচণ্ড গরমের কারণে যুক্তরাজ্যের কিছু স্কুল প্রাথমিক ছুটির পরিকল্পনা করেছে। তবে দেশে স্কুল খোলা রাখতে সরকারি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। ইউকে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সোমবার এবং মঙ্গলবার ট্রেনে অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণের পরামর্শ দিয়েছে। ইতিমধ্যে, কিছু নির্ধারিত ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। ট্রেনের গতিসীমা নির্দিষ্ট।

স্পেনে আট দিন ধরে তাপপ্রবাহ চলছে। স্পেনে তাপজনিত মৃত্যুর সংখ্যা 510 ছাড়িয়েছে, দেশটির তৃতীয় কার্লোস স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট জানিয়েছে। গ্যালিসিয়া, লিওন, কাতালোনিয়া সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আগুন দেখা দিয়েছে। স্পেনের সরকার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় জামোরা প্রদেশে গতকাল সন্ধ্যায় বনের আগুনের সাথে লড়াই করার সময় একজন ফায়ার সার্ভিস কর্মীর মৃত্যুর খবর দিয়েছে। দেশে আগুনে দুইজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। দাবানল স্পেন জুড়ে ছড়িয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন আবহাওয়াবিদরা। পর্তুগালে এক সপ্তাহ পর গতকাল গরম কিছুটা কমেছে। তবে পর্তুগালের আবহাওয়া বিভাগ আইপিএমএ সতর্ক করেছে যে উচ্চ তাপমাত্রার কারণে দাবানল সারা দেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে। দেশের অন্তত নয়টি স্থানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন ফায়ার সার্ভিসের এক হাজারের বেশি কর্মীরা। এ কাজে ১৪টি বিমান মোতায়েন করা হয়েছে।

দক্ষিণ-পশ্চিম ফ্রান্সে ১১,০০০ হেক্টরের বেশি বন পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। ওই এলাকা থেকে ১৪ হাজারের বেশি মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন ফায়ার সার্ভিসের ১ হাজার ২০ জন। দাবানলের কারণে ফ্রান্সেও রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।

অন্যদিকে ইতালি ও সুইজারল্যান্ডে প্রচুর আগুন লেগেছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বেলজিয়াম ও জার্মানিতে ভয়াবহ দাবানলের বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ইউরোপে আগুন জ্বলছে, মৃত্যু বাড়ছে

আপডেট সময় ০৪:০৭:৩২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ জুলাই ২০২২

উচ্চ তাপমাত্রা ও তীব্র খরায় এক সপ্তাহ ধরে পুড়ছে ইউরোপের একটি বড় অংশ। যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, পর্তুগাল, স্পেনসহ বিভিন্ন দেশে দ্রুত তাপমাত্রা বাড়ছে। যুক্তরাজ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার জন্য রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। পর্তুগাল-স্পেন-ফ্রান্সের অনেক জায়গায় আগুন লেগেছে। স্পেনসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে উচ্চ তাপমাত্রার কারণে মৃত্যুর খবরও পাওয়া গেছে।

যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে সোমবার ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হবে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে। দেশটির প্রধান আবহাওয়াবিদ পল ডেভিস বলেছেন, মঙ্গলবারের মধ্যে তাপমাত্রা ৪০ বা ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছতে পারে। এটি হতে পারে যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড। দেশে আগের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল 2019 সালে কেমব্রিজে, 38.7 ডিগ্রি সেলসিয়াস।

যুক্তরাজ্যের আবহাওয়া অফিস তাপপ্রবাহের জন্য ইয়র্ক এবং ম্যানচেস্টার থেকে লন্ডন এবং দক্ষিণ-পূর্ব ইংল্যান্ডের বড় অংশের জন্য একটি ‘লাল সতর্কতা’ জারি করেছে। দেশের বাকি অংশেও উচ্চ তাপমাত্রার পূর্বাভাস রয়েছে। ইংল্যান্ডের বাকি অংশ, পুরো ওয়েলস এবং স্কটল্যান্ডের কিছু অংশে হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। অন্যদিকে লন্ডনের তাপমাত্রা আগামীকাল বুধবার ঠান্ডা হতে পারে।

প্রচণ্ড গরমের কারণে যুক্তরাজ্যের কিছু স্কুল প্রাথমিক ছুটির পরিকল্পনা করেছে। তবে দেশে স্কুল খোলা রাখতে সরকারি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। ইউকে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সোমবার এবং মঙ্গলবার ট্রেনে অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণের পরামর্শ দিয়েছে। ইতিমধ্যে, কিছু নির্ধারিত ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। ট্রেনের গতিসীমা নির্দিষ্ট।

স্পেনে আট দিন ধরে তাপপ্রবাহ চলছে। স্পেনে তাপজনিত মৃত্যুর সংখ্যা 510 ছাড়িয়েছে, দেশটির তৃতীয় কার্লোস স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট জানিয়েছে। গ্যালিসিয়া, লিওন, কাতালোনিয়া সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আগুন দেখা দিয়েছে। স্পেনের সরকার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় জামোরা প্রদেশে গতকাল সন্ধ্যায় বনের আগুনের সাথে লড়াই করার সময় একজন ফায়ার সার্ভিস কর্মীর মৃত্যুর খবর দিয়েছে। দেশে আগুনে দুইজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। দাবানল স্পেন জুড়ে ছড়িয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন আবহাওয়াবিদরা। পর্তুগালে এক সপ্তাহ পর গতকাল গরম কিছুটা কমেছে। তবে পর্তুগালের আবহাওয়া বিভাগ আইপিএমএ সতর্ক করেছে যে উচ্চ তাপমাত্রার কারণে দাবানল সারা দেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে। দেশের অন্তত নয়টি স্থানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন ফায়ার সার্ভিসের এক হাজারের বেশি কর্মীরা। এ কাজে ১৪টি বিমান মোতায়েন করা হয়েছে।

দক্ষিণ-পশ্চিম ফ্রান্সে ১১,০০০ হেক্টরের বেশি বন পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। ওই এলাকা থেকে ১৪ হাজারের বেশি মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন ফায়ার সার্ভিসের ১ হাজার ২০ জন। দাবানলের কারণে ফ্রান্সেও রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।

অন্যদিকে ইতালি ও সুইজারল্যান্ডে প্রচুর আগুন লেগেছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বেলজিয়াম ও জার্মানিতে ভয়াবহ দাবানলের বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।